বায়ুদূষণে ধোঁয়াশাচ্ছন্ন পরিবেশ নিয়ে যা জানাল আবহাওয়া অফিস

2
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট:
শীতের আগমনী আর বায়ুদূষণে গত দুদিন ধরে ধোঁয়াশাচ্ছন্ন ঢাকার আবহাওয়া। এমন পরিস্থিতি আরো কয়েকদিন থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

এদিকে, বাড়ছে করোনা আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা। এ সপ্তাহের শুরুতে ঢাকা শিশু হাসপাতালে ১৭ শিশু করোনা নিয়ে ভর্তি হয়েছে। শিশুদের ঠাণ্ডাজনিত রোগ থেকে বাঁচাতে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মানার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

ঘড়ির কাটায় শনিবার (২১ নভেম্বর) বেলা প্রায় ১১ টা। যদিও দেখে মনে হতে পারে প্রকৃতির এই দৃশ্য ভোর ৬টা কিংবা ৭টার। আকাশে অন্ধকার ভাব। একদিন আগেই হয়েছিল অসময়ের বৃষ্টি। হঠাৎই আবহাওয়ার এই বৈরিতা কেন?

একজন বলেন, পরিস্থিতি আগের চেয়েও খারাপ হয়ে গেছে। সেই ক্ষেত্রে এখন স্বাস্থ্যবিধি কঠোর ভাবে মেনে চলতে হবে লকডাউনের শুরুর দিনগুলোতে বায়ুমণ্ডল যতটা স্বচ্ছ ছিল, এখন ঠিক তার বিপরীত অবস্থা।

এ বিষয়ে একজন বলেন, কম উচ্চতা বিশিষ্ট মেঘমালা তৈরি হয় আকাশে। সেই কারণেই কিছুটা বৃষ্টিপাত হয়েছে। এছাড়া, অনেক সময় দূষিত কণা ও বাতাসে উড়ে ধোঁয়াশাচ্ছন্ন সৃষ্টি হয়ে থাকে, তবে সেটা কুয়াশা নয়।

আবহাওয়া অফিস বলছে, বাতাসে দূষিত কণা বেড়েছে আগের তুলনায় অনেক বেশি। সেই সাথে মেঘমালায় রয়েছে শীতের আগমনী প্রভাব।

এদিকে শীতের একটু দেখাতেই বাড়ছে শিশুদের ঠাণ্ডাজনিত রোগ। সেই সঙ্গে করোনায় আক্রান্তের হারও বেশি। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে শিশু হাসপাতালের করোনা আক্রান্ত রোগী ছিল ১০। এ সপ্তাহের শুরুতে এই হাসপাতালে ভর্তি ১৭ শিশু। একইভাবে অন্য হাসপাতালেও আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা আগের তুলনায় বেশি।

এক চিকিৎসক বলেন, ৭-৮ মাস ধরে যে পরিমাণ করোনা আক্রান্ত শিশু রোগী ভর্তি ছিল। সেই তুলনায় সেটা কিন্তু দিগুণ হয়ে গেছে। স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে বড়দের পাশাপাশি শিশুরাও আক্রান্ত হচ্ছে।

মহামারির এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে আরো সতর্ক হওয়ার পরামর্শ চিকিৎসকদের।