মামলায় হেরে গেলেন জনি ডেপ

11
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্ক
হলিউড তারকা জনি ডেপ তার সাবেক স্ত্রীর বিরুদ্ধে করা ৫০ মিলিয়ন ডলারের মানহানি মামলায় হেরে গেছেন। মামলায় হেরে ক্যারিয়ার নিয়েও বিপাকে পড়েছেন এই হলিউড অভিনেতা।

হলিউড রিপোর্টারের সাবেক এডিটোরিয়াল ডিরেক্টর ম্যাথিও বেলোনির মতে, জনি ডেপ একটি ব্র্যান্ড। কিন্তু মামলায় হেরে যাওয়ায় বক্স অফিসে তার আধিপত্যের দিন শেষ হয়ে যাবে। তবে হাতে থাকা কাজগুলোর কোনোটি যদি বক্স অফিসে চমক দেখাতে পারে, তাহলেই তার ফিরে আসা সহজ হবে।

সেলিব্রেটি ব্র্যান্ডিং এক্সপার্ট জিতেন্দর সেহদেব বলেন, ‘জনি ডেপের জন্য মামলায় হেরে যাওয়ার বিষয়টি কফিনে শেষ পেড়েক ঠোকার মতো হলো। তার আগের ভাবমূর্তি আর থাকবে না।’

হলিউড তারকা জনি ডেপ ও অ্যাম্বার হার্ড ২০১৫ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেও ২০১৬ সালে জনি ডেপের বিরুদ্ধে শারীরিক ও যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনে আদালতে ডিভোর্সের আবেদন করেন অ্যাম্বার হার্ড। স্ত্রীর সেই অভিযোগ অস্বীকার করলেও প্রায় ৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করে বিচ্ছেদের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন জনি ডেপ। সেই সময়ে আদালতের কাছে দুইজন প্রতিজ্ঞা করেছিলেন যে, ভবিষ্যতে তাদের দাম্পত্য জীবন নিয়ে জনসম্মুখে আর কোনো ধরনের আলোচনা করবেন না তারা।

কিন্তু ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন পোস্টের কাছে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রাক্তন স্বামী জনি ডেপের বিরুদ্ধে আবারও শারীরিক ও যৌন নির্যাতনের অভিযোগ করেন তার সাবেক স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ড। এ কারণেই পরবর্তীতে ব্যক্তিগত আইনজীবীর সহায়তায় মানহানির মামলা করেছিলেন জনি ডেপ।