রায়হান হত্যা: যে কারনে, তদন্ত কর্মকর্তা বদল

2
Print Friendly, PDF & Email

সিলেট থেকে করসপন্ডেন্ট:
সিলেটের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে নিহত রায়হান আহমদ হত্যা মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) সিলেটের পরিদর্শক আওলাদ হোসেনকে নতুন তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে পিবিআই সিলেটের পুলিশ সুপার খুলেকুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

খুলেকুজ্জামান বলেন, রায়হান হত্যা মামলায় আগের তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মুহিদুল ইসলাম করোনা আক্রান্ত হওয়ায় মামলার তদন্তের স্বার্থে আওলাদ হোসেনকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মুহিদুল ইসলাম সুস্থ হওয়ার পর পুনরায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর আগে সোমবার (০২ নভেম্ববর) সিলেট পিবিআই পুলিশ সুপার খালেদ উজ জামান জানান, মামলা তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআইয়ের ৮ কর্মকর্তা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন।

তিনি জানান, করোনা আক্রান্তরা রায়হান হত্যা মামলা তদন্তের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছিলেন। এ মামলাটি তদন্ত করার জন্য পিবিআই যে দলটি গঠন করেছে এতে আক্রান্তরা রয়েছেন। চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে তাদের চিকিৎসা চলছে। করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতালে ৩ জন পুলিশ পরিদর্শক ও হোম কোয়ারেন্টাইনে আরও ২ জন রয়েছেন।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, করোনা আক্রান্ত হলেও মামলা তদন্তে কোনো বিঘ্ন ঘটবে না।

আলোচিত এ হত্যা মামলায় সাময়িক বরখাস্ত হওয়া এসআই আকবর পলাতক থাকলেও কারাগারে রয়েছে কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস ও কনস্টেবল হারুনুর রশীদ।

রিমান্ডে রয়েছেন এএসআই আশেক ই এলাহী। এছাড়া নিহত রায়হানকে ছিনতাকারী হিসেবে অভিযোগকারী শেখ সাইদুর রহমান। এছাড়াও পিবিআই কাছে রিমান্ডে রয়েছেন এএসআই আশেক এলাহি।

উল্লেখ্য, গত ১১ অক্টোবর রাত ৩টার দিকে রায়হানকে সিলেট কোতোয়ালি থানার বন্দরবাজার ফাঁড়িতে তুলে নিয়ে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। নির্যাতনে রায়হান মারা যান। এ ঘটনায় তার স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি পরদিন হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইনে মামলা করেন।