সাকিব দেশে ফিরছেন বৃহস্প্রতিবার

7
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস নিউজ ডেস্কঃ
এখন তিনি মুক্ত পাখি। ৯৬ ঘণ্টা আগে তিনি শাস্তিমুক্ত হয়েছেন। বাজিকরদের কাছ থেকে অফার পেয়ে তা গ্রহণ না করলেও, সেটা নিজ বোর্ড কিংবা আইসিসির কাছে না জানানোর অপরাধে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা ভোগ করতে হয়েছে চ্যাম্পিয়ন অলরাউন্ডারকে। সেসব এখনো পুরনো গল্প, চ্যাম্পিয়নের ফেরার অপেক্ষায় তাকিয়ে আছে সবাই।

ভক্ত, সমর্থকরা উদ্বেলিত। বিসিবিতে খুশির ফোয়ারা, অন্যরকম সন্তুষ্টি। এখন যত কথা তাকে নিয়ে। সাকিব কবে দেশে ফিরবেন? যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে এসে আবার কবে মাঠে ফেরার প্রস্তুতি শুরু করবেন? তা জানতে রাজ্যের কৌতূহল সবার।

এর আগে শোনা গিয়েছিল, শ্রীলঙ্কা সফরের দ্বিতীয় টেস্ট থেকে মাঠে ফিরবেন সাকিব। সে লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরে বিকেএসপিতে ১৫ দিনের নিবিড় অনুশীলও করেছেন। শ্রীলঙ্কা সফর বাতিলের ঘোষণা আসার পর গত ১ অক্টোবর দিবাগত রাতে আবার চলে যান আমেরিকা।

এখন সবার একটাই কৌতূহলী প্রশ্ন, নিষেধাজ্ঞামুক্ত হওয়ার পর এখন আবার কবে দেশে ফিরবেন সাকিব? এবারও কি আগের মতো বিকেএসপিতে নিবিড় অনুশীলন করবেন? আবার সেই ছাত্রজীবনের শিক্ষক নাজমুল আবেদিন ফাহিম ও গুরু মেন্টর মোহাম্মদ সালাউদ্দীনের অধীনেই চলবে বিকেএসপিতে অনুশীলন?

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এবার আর বিকেএসপিতে আবাসিক অনুশীলন নয়। দেশে ফিরে বিসিবির প্রস্তাবিত টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলবেন সাকিব। এর আগে তার টিমের অনুশীলনেও অংশ নেবেন।

আজ (সোমবার) সাকিবের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র নিশ্চিত করেছে, সাকিব যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেরত আসছেন ৭২ ঘণ্টা পর, আগামী ৫ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার)। দেশে ফিরে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের জন্য প্রস্তুতি শুরু করবেন। যতদূর জানা গেছে, সেটা বিকেএসপিতে নয় বরং দেশের হোম অব ক্রিকেটে।

তার মানে নভেম্বরের ১০ তারিখের মধ্যেই হয়তো শেরেবাংলায় ব্যাট ও বল হাতে অনুশীলনে দেখা মিলবে সাকিবের। তারপর চলতি মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে যে পাঁচ দলকে নিয়ে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হবে, সেখানেও খেলবেন সাকিব। বলার অপেক্ষা রাখে না, প্লেয়ার্স ড্রাফট হলে সাকিবকে পেতেই আগ্রহী হবে সব দল।

এক বছর পর আবার মাঠে ফেরা মুক্ত সাকিবকে দলে ভেড়াতে রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যাবে। প্লেয়ার্স ড্রাফট হলে সাকিবই হবেন সব দলের ফার্স্ট চয়েজ। তাকে নিয়ে নিশ্চিতভাবেই কাড়াকাড়ি পড়ে যাবে এবং এটা সত্য যে, টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে সাকিব আছেন বলেই শেষ পর্যন্ত এটা কর্পোরেট লিগ হতে যাচ্ছে। মাঠে ফেরা সাকিব হতে পারেন যেকোন দলের জন্য বড় সম্পদ।