রূপালী পর্দারও মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর

4
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্কঃ
আসাদুজ্জামান নূর ২০০১ সাল থেকে নীলফামারি-২ আসনের সংসদ সদস্য। এছাড়া আওয়াম লীগ সরকারের তৃতীয় মন্ত্রিসভায় তিনি সংস্কৃতিমন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি সাবেক মন্ত্রী। নতুন খবর হলো, এবার রুপালি পর্দায়ও মন্ত্রী হিসেবে হাজির হতে চলেছেন অভিনেতা আসাদুজ্জামান নূর। নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল পরিচালিত ‘গাঙচিল’ ছবিতে মন্ত্রীর ভূমিকায় দেখা যাবে তাকে।

বাংলা নাট্য জগতের তুমুল জনপ্রিয় একজন অভিনেতা ‘বাকের ভাই’ খ্যাত আসাদুজ্জামান নূর। তিনি অভিনয় করেছেন চলচ্চিত্রেও। ‘গাঙচিল’ সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা ‘গাঙচিল’ উপন্যাস অবলম্বনে।

বুধবার এ ছবির জন্য নিজের অংশের শুটিং শেষ করেন অভিনেতা ও সাংসদ আসাদুজ্জামান নূর। একদিনের জন্যেই শিডিউল দেয়া ছিল তার। শুটিং হয়েছে তেজগাঁওয়ের একটি ভবনের সাত তলায়। মন্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করা আসাদুজ্জামান নূরের অংশে দেখা যাবে, তিনি একজন জঙ্গিকে ধরিয়ে দেন, যিনি চার যুবককে নিয়ে সুইসাইড স্কোয়াড তৈরি করেন। ছবির পুরো গল্পে মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের ভূমিকা থাকলেও তাকে দেখা যাবে মাত্র তিনটি দৃশ্যে। যিনি সব কলকাঠি নাড়েন।

আমাদের দেশের বেশির ভাগ চলচ্চিত্রে মন্ত্রীদের সাধারণত ভিলেন চরিত্রে দেখানো হয়। ‘গাঙচিল’ ছবিতে আসাদুজ্জামান নূরের চরিত্রটি কেমন? অভিনেতা জানান, ‘সাধারণত দেশের বিভিন্ন চলচ্চিত্রে মন্ত্রীদের যেভাবে দেখানো হয়, এখানে সে রকম নেতিবাচক কোনো চরিত্র আমি অভিনয় করছি না। এই ছবির গল্পে দেশ ও মানুষের সঙ্গেই আমি থাকি। যে দৃশ্যগুলো করছি, সেখানে মানুষের জন্যই কথা বলি।’

প্রসঙ্গত, নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল পরিচালিত ‘গাঙচিল’ ছবিটির প্রধান দুটি চরিত্রে রয়েছেন জনপ্রিয় জুটি ফেরদৌস আহমেদ ও পূর্ণিমা। এখানে ফেরদৌসকে দেখা যাবে সাংবাদিকের চরিত্রে আর পূর্ণিমা রয়েছেন একজন এনজিওকর্মীর ভূমিকায়। গত বছর এ ছবিটির শুটিং শুরু হয়েছিল। মাঝে করোনার কারণে বন্ধ ছিল। এ মাসের শুরুতে আবার চালু হয়েছে লাইট-ক্যামেরা।