ফলন ভাল, খুশি জুম চাষীরা

5
Print Friendly, PDF & Email

বান্দরবান থেকে করসপন্ডেন্টঃ
বান্দরবান পার্বত্য জেলার বিস্তীর্ণ সবুজ পাহাড়ের বাতাসে এখন পাকা জুম ধানের ঘ্রাণ। ধান ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন জুমিয়ারা। পর্যাপ্ত বৃষ্টি আর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় গত বছরের চেয়ে এবার ফলন ভাল হওয়ায় খুশি জুমচাষিরা।

চিম্বুক সড়কের রামরিপাড়া, ম্রোলংপাড়া, পর্যটন চাকমা, এবং নীলাচল সড়কের টাইগারপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকার জুমিয়ারা ধান কাটাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

সাধারণত পৌষ-মাঘ মাসে পাহাড় নির্বাচন করে জঙ্গল কাটা শুরু হয়। বৈশাখের প্রথম বৃষ্টিতে প্রথম বীজধান রোপণ করেন জুমিয়ারা। পরবর্তীতে বিভিন্ন তরিতরকারির বীজ বপনসহ নানান ঔষধি ফসল রোপণ করা হয়।

সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে কাটা হয় ফসল। ধান, ভুট্টা, মরিচ, যব, মিষ্টি কুমড়া, আদাসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদন করে সারা বছরের খাদ্যের যোগান দেয় পাহাড়িরা।

কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, গেল বছর ৮ হাজার ৮৯৫ হেক্টর জমিতে ১৪ হাজার মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হয়। এ বছর ৯ হাজার ২০ হেক্টর জমিতে করা হয়েছে ধানের আবাদ। অনুকূল আবহাওয়ার কারণে ফলন ভালো হওয়ায় খুশি জুমচাষিরা।

আরও ফলন বাড়াতে চাষিদের নানা পরামর্শ দিয়েছে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। বান্দরবান জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক একেএম নাজমুল হক বলেন, “স্থানীয় যে ধানগুলো আছে এগুলো ছাড়াও বিনা-১৯ ও বিনা-৮৩ কৃষকদের দিয়ে আবাদ বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।”