চাঁদে ফোরজি নেটওয়ার্ক করবে নাসা

16
Print Friendly, PDF & Email

টেকনোলজি ডেস্কঃ
বিজ্ঞান তার অগ্রগতির ঘোড়া ছুটিয়ে চলছে নিজস্ব গতিতেই। ছড়িয়ে দিচ্ছে জীবনের গতিময়তা সবখানেই। যেখানে চাঁদে যাওয়া একসময় অসম্ভব ছিল, এখন সেটা খুবই স্বাভাবিক। চিন্তা করা হচ্ছিল বসতি গড়ার। সে কাজও প্রায় শেষ। এবার চাঁদে ফোরজি নেটওয়ার্ক গড়ার পরিকল্পনা করছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা।

চাঁদ ঘিরে মানুষের আগ্রহের অন্ত নেই। পৃথিবীর একমাত্র এই উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্বের সন্ধানে নিরন্তর গবেষণা করে চলেছেন বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা। লক্ষ্য একটাই—ভবিষ্যতে চাঁদের বুকে মনুষ্য বসতি গড়ে তোলার সব সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা। চাঁদে মানুষের বসবাসের মতো পরিবেশ তৈরিতে বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। তারা সেখানে ফোরজি নেটওয়ার্ক চালু করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে। এ জন্য টেলিকম সংস্থা নকিয়ার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে নাসা। 

নকিয়ার রিসার্চ সংস্থা বেল ল্যাবসের সঙ্গে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থার এসংক্রান্ত চুক্তি হয়েছে। প্রাথমিক পরিকল্পনা অনুসারে, নকিয়া চাঁদে প্রথমে ফোরজি এলটিই নেটওয়ার্ক গড়ে তুলবে। পরে সেটিকে ফাইভজিতে পরিণত করা হবে। মহাকাশ গবেষণা ও অনুসন্ধানে মোট ৩৭ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে নাসা। তার মধ্যে এক কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলার মূল্যের বরাদ্দ পেয়েছে নকিয়া। এই অর্থ খরচ করে চাঁদে ফোরজি মোবাইল নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে রাজি হয়েছে ফিনল্যান্ডের মোবাইল প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটি।

নাসার তরফে জানানো হয়েছে, চাঁদের পৃষ্ঠে ফোরজি যোগাযোগব্যবস্থা অনেক দূর পর্যন্ত, আরো বেশি স্পিডে এবং অনেক  ভালোভাবে কাজ করবে।

সাম্প্রতিকতম এই চন্দ্র অভিযানের জন্য মোট ১৪টি কম্পানিকে নির্বাচিত করেছে নাসা। তার মধ্যে নকিয়া অন্যতম। গোটা প্রকল্প রূপায়ণে ৩৭ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের একটি যৌথ তহবিল গঠন করা হয়েছে। চলতি দশকের শেষের দিকে চাঁদে মানুষের বসবাসের মতো পরিবেশ তৈরি করতে চায় নাসা। গোটা বিষয়টি তারই অংশ। নকিয়া ছাড়া স্পেসএক্স, লকহিড মার্টিন, সিয়েরা নেভাডা, এসএসএল রোবটিকস ও ইউনাইটেড লঞ্চ অ্যালায়েন্সের মতো কম্পানিকে এই প্রকল্পের জন্য নির্বাচিত করেছে তারা।