রাজধানীর বাজারে থরে থরে সাজানো সবজির সংকট নেই, অথচ বন্যা-বৃষ্টির অজুহাতে দাম চড়া

8
Print Friendly, PDF & Email

স্পেশাল করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
সরকারি সিদ্ধান্তের তোয়াক্কা না করে রাজধানীর কাঁচাবাজারে বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে আলু। এখনও লাগামহীন প্রায় সব ধরনের শাকসবজির দাম। বন্যা আর অতিবৃষ্টির কারণে সরবরাহ সংকট হলেও খুচরা বিক্রেতাদের দাবি সংকট আরো বাড়াচ্ছে আড়তদারদের সিন্ডিকেট। অন্যদিকে, আয়ের সঙ্গে ব্যয়ের তাল মেলাতে না পেরে হিমশিম খাচ্ছেন ক্রেতারা।

থরে থরে সাজানো শাক সবজির পসরা দেখে বোঝাই যায় বাজারে সবজির কোনো সংকট নেই। অথচ বন্যা, বৃষ্টির কারণে সরবরাহ সংকটের অজুহাতে রাজধানীতে প্রতিদিনই বাড়ছে শাক সবজির দাম। সব ধরনের সবজি বিক্রি হচ্ছে গত সপ্তাহের তুলনায় চড়া দামে।

সরকারি নির্দেশনা না মেনেই ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে আলু। ব্যবসায়ীরা বলছেন, নতুন মৌসুমের সবজি আসার আগে নিয়ন্ত্রণে আসবে না বাজার। তাদের অভিযোগ, আড়তদারদের সিন্ডিকেটের কারণেই বাজার অতিরিক্ত চড়া।

একজন বিক্রেতা বলেন, ‘সবজি যেখানে আসে ৪ গাড়ি, সেখানে দুই গাড়ি আড়তে নিয়ে আসে আর দুই গাড়ি মজুত করে রাখে। এখানে সংকট দেখিয়ে দাম বাড়িয়ে দেয়। এতে প্রতি কেজিতে দশ থেকে বিশ টাকা বেড়ে যায় দাম।’

এদিকে, আয়ের সাথে সামঞ্জস্য রেখে বাজার করতে পারছেন না ক্রেতারা। তাই বাজারের পরিমাণ আর খাবারের চাহিদা কমিয়ে আনতে হচ্ছে। আবারো তাদের আহ্বান খুচরা আর পাইকারি বাজারে সমন্বিত তদারকির।

কারওয়ান বাজারের এক ক্রেতা বলেন, ‘প্রতি মাসেই তো একই পরিমাণ বেতন পাই। কিন্তু বাজারে আসলে প্রতিবারই কোনো না কোনো পণ্যের দাম বাড়তি দেখা যায়। সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করা হয় না অনেক পণ্যই।’

করোনাকালীন সময়ে অর্থনীতি পুরোপুরি সচল না হওয়ায় ক্রেতাদের জিম্মি করে অতিরিক্ত মুনাফা না করারও আহ্বান জানিয়েছেন ক্রেতারা।