আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে নিতে চায় যুক্তরাষ্ট্র

7
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্ক:
দীর্ঘ ১৯ বছরের যুদ্ধের ইতি টানার প্রক্রিয়া আরও তরান্বিত করতে বড়দিনের মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনাকে সরিয়ে আনতে চান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার একটি টুইট বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এমনটি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে এক টুইটবার্তায় ট্রাম্প লিখেছেন- বড়দিনের মধ্যে আফগানিস্তানে স্বল্পসংখ্যায় অবশিষ্ট আমাদের বীরপুরুষ ও নারী (সেনাদের) ফিরিয়ে আনা উচিত আমাদের। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগ মাস আগে এই ইঙ্গিত দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অনেকের ধারণা, এর মাধ্যমে ট্রাম্প দেখাতে চাচ্ছেন নির্বাচনের আগে ‘সীমাহীন’ এই যুদ্ধের শেষ টানতে ভালো একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে এটা স্পষ্ট হওয়া যায়নি যে এটা কি ট্রাম্পের নির্দেশে নাকি মৌখিক আশ্বাস।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে কাতারে তালেবানদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ০২১ সালের মধ্যে সব সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে একমত হয় যুক্তরাষ্ট্র।

ট্রাম্পের এমন টুইট বার্তা দেয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েন বলেছেন, আগামী বছরের শুরুতেই আফগানিস্তানে থেকে আড়াই হাজার সেনা ফিরিয়ে আনবে ওয়াশিংটন।

বর্তমানে আফগানিস্তানে প্রায় পাঁচ হাজারের চেয়ে কম সেনা মোতায়েন রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের। তবে এসব সেনাদের ওপর হামলা না করার চুক্তি করেছে তালেবানরা।

এ বিষয়ে এক টুইটবার্তায় ট্রাম্প লিখেছেন- বড়দিনের মধ্যে আফগানিস্তানে স্বল্পসংখ্যায় অবশিষ্ট আমাদের বীরপুরুষ ও নারী (সেনাদের) ফিরিয়ে আনা উচিত আমাদের। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগ মাস আগে এই ইঙ্গিত দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অনেকের ধারণা, এর মাধ্যমে ট্রাম্প দেখাতে চাচ্ছেন নির্বাচনের আগে ‘সীমাহীন’ এই যুদ্ধের শেষ টানতে ভালো একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে এটা স্পষ্ট হওয়া যায়নি যে এটা কি ট্রাম্পের নির্দেশে নাকি মৌখিক আশ্বাস।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে কাতারে তালেবানদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ০২১ সালের মধ্যে সব সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে একমত হয় যুক্তরাষ্ট্র।

ট্রাম্পের এমন টুইট বার্তা দেয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েন বলেছেন, আগামী বছরের শুরুতেই আফগানিস্তানে থেকে আড়াই হাজার সেনা ফিরিয়ে আনবে ওয়াশিংটন।

বর্তমানে আফগানিস্তানে প্রায় পাঁচ হাজারের চেয়ে কম সেনা মোতায়েন রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের। তবে এসব সেনাদের ওপর হামলা না করার চুক্তি করেছে তালেবানরা।

বর্তমানে আফগানিস্তানে প্রায় পাঁচ হাজারের চেয়ে কম সেনা মোতায়েন রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের। তবে এসব সেনাদের ওপর হামলা না করার চুক্তি করেছে তালেবানরা।