কোভিড-১৯: আক্রান্ত হোয়াইট হাউজের একাধিক কর্মকর্তা

11
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্কঃ
মার্কিন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় হোয়াইট হাউজে ক্রমে বেড়েই চলছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। এই রোগটিতে এবার আক্রান্ত হয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপদেষ্টা স্টিফেন মিলার এবং সেনাবাহিনীর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ প্রায় ১৭-১৮ জন।

এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ট্রাম্পের উপদেষ্টা স্টিফেন মিলারের স্ত্রী ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের প্রেস সেক্রেটারি কেটি মিলার। তার শরীরে করোনার উপস্থিতি উদ্বেগ কয়েকগুন বাড়িয়ে দিয়েছে প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মীদের। কারণ কেটি মিলার হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে কর্মরত।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের মধ্যে করোনার সংক্রমণ অব্যাহত রয়েছে। গত পাঁচদিন ধরে আইসোলেশনে থাকা মিলার মঙ্গলবার কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত হন।

ট্রাম্পের স্পিচ-রাইটার স্টিফেন মিলার স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে বলেন, ‘পাঁচ দিন ধরে আমি বাড়িতে আছি। এই কদিন নেগেটিভ এসেছিল। আজ পজিটিভ হয়েছি। কোয়ারেন্টাইনে থাকব।’

বিবিসি জানিয়েছে, কোস্টগার্ড কর্মকর্তা অ্যাডমিরাল চার্লস রে পজিটিভ হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় জেনারেল মার্ক মিলে এবং আরও কয়েক জন সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। মিল্লি ছাড়াও ভাইস চিফ অব স্টাফ, আর্মি চিফ অব স্টাফ, চিফ অব নেভাল অপারেশনস, এয়ার ফোর্স চিফ অব স্টাফ, সাইবারকম কমান্ডার, স্পেস ফোর্স চিফ, চিফ অব দ্য ন্যাশনাল গার্ড ও ডেপুটি কমান্ড্যান্ট অব দ্য মেরিন কর্পসও আইসোলেশনে।

তবে কোস্টগার্ডের ভাইস কমান্ডার চার্লস রে’র উপসর্গগুলো খুব একটা তীব্র নয় বলে খবরে জানানো হয়েছে। চার্লস রে গত সপ্তাহে উপস্থিত ছিলেন এমন একটি সভায় মার্কিন সামরিক বাহিনীর জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ সদস্যদের প্রায় সবাই-ই উপস্থিত ছিলেন।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজের অনেক কর্মকর্তা কাজে যাননি। প্রেসিডেন্ট হাসপাতাল থেকে ফিরে আসায় ভবনে রীতিমতো আতঙ্ক বিরাজ করছে। এই পরিস্থিতির জন্য ট্রাম্পকে দোষারোপ করছে মার্কিন গণমাধ্যম। ট্রাম্প করোনাকে পাত্তা না দিয়ে বিপদ ডেকে এনেছেন বলে দাবি কয়েকজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তার।

ট্রাম্পের নিকটবর্তী এমন অনেকের করোনা পজিটিভ এসেছে। এর মধ্যে উপদেষ্টা, সিনেটর ও সাংবাদিকও রয়েছেন। গত সোমবার হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব কেইলি ম্যাকএনানির করোনা শনাক্ত হয়।

এদিকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে এখন আগামী ১৫ অক্টোবর দ্বিতীয় দফা বির্তকের অপেক্ষায় ট্রাম্প। তবে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী ডেমোক্র্যাট জো বাইডেন বলছেন, ট্রাম্প এখনও করোনা পজিটিভ হলে বির্তকে অংশ নেবেন না তিনি। অন্যদিকে করোনা ও ফ্লু নিয়ে ভুল তথ্য দেয়ায় ট্রাম্পের ফেইসবুক ও টুইটার পোস্ট মুছে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।