নির্যাতিত গৃহবধূ, জনপ্রতিনিধির কাছে অভিযোগ করেও পাননি প্রতিকার!

৬ই অক্টোবর, ২০২০ || ০৫:১৩:০১
29
Print Friendly, PDF & Email

নোয়াখালী থেকে করসপন্ডেন্ট:
নোয়াখালীতে স্থানীয় ইউপি সদস্যের কাছে অভিযোগ জানিয়েও প্রতিকার পাননি নিপীড়নের শিকার গৃহবধূ। বরং তাকে নানাভাবে হেনস্থা করা হয়। স্থানীয়রা জানান, রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে দেলোয়ার বাহিনী। চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেনের দাবি, বিষয়টি পুলিশকে জানায়নি কেউ।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তদন্ত কমিটির প্রধান আল মাহমুদ ফায়জুল কবির জানান, নির্যাতিত নারীকে বছরখানেক আগে আরও দুবার ধর্ষণ করেছিলো আসামি দেলোয়ার। নারীর বাড়িতে ধর্ষণ করে দেলোয়ার। তখন ভুক্তভোগী নারী বাড়ি একা ছিলেন।

এদিকে ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দিবাগত রাতে গ্রেপ্তার হয় বেগমগঞ্জের ইউপি সদস্য সোহাগসহ আরও দুই আসামি। এ পর্যন্ত এ ঘটনায় ৬ আসামিকে গ্রেপ্তার করা হলো।

রোববার (৫ অক্টোবর) রাত ১টায় নির্যাতিতা নারী বাদী হয়ে বাদলকে প্রধান আসামি করে ৯ জনের বিরূদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং পর্নোগ্রাফি অ্যাক্ট ও নারী নির্যাতন দমন আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন।

গত সেপ্টেম্বরে ওই নারীর বাড়িতে আসে স্থানীয় দেলওয়ার বাহিনীর ৭-৮ জন সদস্য। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘরে ঢুকে তাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন চালায় তারা। সম্প্রতি নির্যাতনের ভিডিওটি ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।