বায়ার্নের জার্মান সুপার কাপ জয়

১ই অক্টোবর, ২০২০ || ০১:০৭:০০
11
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস ডেস্কঃ

সময়টা এখন বায়ার্নেরই। মাঠে নামলেই সাফল্য এমনটাই যেন এই জার্মান ক্লাবের প্রতিশব্দ হয়ে দাঁড়িয়েছে এখন। যদিও টানা ১০ মাস অপরাজিত থাকার পর হারতে হয়েছিল হফেনহাইমের কাছে। সেটা যে তুচ্ছ ঘটনা এমন তারা বলতেই পারে। যেহেতু অল্প দিনেই তারা জিতে নিলো আরেকটি বড় শিরোপা। বায়ার্নের ঘরে এটি এ বছরের পঞ্চম শিরোপা।

নিজেদের মাঠ আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বুধবার রাতে শিরোপা নির্ধারণী পাঁচ গোলের তীব্র লড়াইয়ে ডর্টমুন্ডকে ৩-২ ব্যবধানে হারায় বায়ার্ন। ২-২ সমতায় এগিয়ে চলা ম্যাচে শেষ দিকে পার্থক্য গড়ে দেন স্বাগতিক দলের জশুয়া কিমিচ।

চলতি বছর এই নিয়ে পাঁচটি শিরোপা জিতল বায়ার্ন। এর আগে তিন মাসের ব্যবধানে বুন্দেসলিগা, জার্মান কাপ, চ্যাম্পিয়নস লিগ ও উয়েফা সুপার কাপ ঘরে তুলে তারা। জার্মানির সবচেয়ে সফল ক্লাবটির সামনে বছরের ষষ্ঠ শিরোপা জয়ের হাতছানি রয়েছে। ক্লাব বিশ্বকাপ জিততে পারলেই সাফল্যের মুকুটে আরও একটি পালক যোগ হবে।

বায়ার্নের বিপক্ষে ম্যাচের অষ্টাদশ মিনিটে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। দ্রুত গতির পাস পেয়ে খুব কাছ থেকে জালে বল জড়ান ফরাসি মিডফিল্ডার করেন্টিন তোলিসো। ৩২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন টমাস মুলার। ডি-বক্সের মাঝামাঝি থেকে নিখুঁত হেডে গোলটি করেন এই আক্রমণভাগের খেলোয়াড়।

ঘুরে দাঁড়াতে বেশি সময় নেয়নি ডর্টমুন্ড। উইঙ্গার হুয়ান ব্র্যান্ডটের গোলে বিরতিতে যাওয়ার ছয় মিনিট আগে একটি গোল শোধ করে অতিথি দল। ৫৫তম মিনিটে তরুণ স্ট্রাইকার আর্লিং হল্যান্ড গোল করলে ম্যাচে সমতা ফেরায় অতিথি দল।

ম্যাচের ৮২তম মিনিটে বায়ার্নকে জয়সূচক গোলটি এনে দেন কিমিচ। ডি-বক্সের মাঝামাঝি থেকে গোলটি করেন জার্মান এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার। তাতে চলতি বছরে পঞ্চমবারের মতো শিরোপা উদযাপনের মতো রসদ পেয়ে যায় বায়ার্ন।