হ্যাঁ, তার সঙ্গে আমার প্রেমঃ শাওন

৩০ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ || ০৫:৪০:১৪
21
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্কঃ

বাংলা সাহিত্যের সবচেয়ে জনপ্রিয় লেখক হুমায়ুন আহমেদের স্ত্রী শাওনকে নিয়ে বিভিন্ন সময়েই গুঞ্জন উঠেছে বিভিন্ন ইস্যুতে। শাওনও অবশ্য ছেড়ে কথা বলেননি কাউকেই। নতুন করে অন্যপ্রকাশের প্রকাশক মাজহারুল ইসলামকে নিয়ে প্রেমের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল, তারই জবাব দিলেন মেহের আফরোজ শাওন মাজহারুল ইসলামের জন্মদিনেই; সেই চিরিচেনা ভঙ্গিতেই।

‘হ্যাঁ… তার সঙ্গে আমার প্রেম। আমার কিশোরীবেলায় প্রণয়ের সময় আমি যখন হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে ছেলেমানুষী রাগ করতাম তখন তিনি বড়ভাইয়ের মতো আমার ভুল ভাবনাগুলো ধরিয়ে দিয়ে আমাকে শান্ত করতেন। উনি আমার আরেক মায়ের গর্ভে জন্ম নেওয়া বড় ভাই- তার সঙ্গে আমার ভাইয়ের মতো প্রেম।’- এভাবেই কথাগুলো লিখেন জনপ্রিয় সাহিত্যিক ও নির্মাতা প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। 

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুর পরপরই গুঞ্জন ওঠে অন্য প্রকাশের স্বত্বাধিকারী মাজহারুল ইসলামের সঙ্গে শাওনের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। বিষয়টিকে এতোদিন কর্ণপাত না করলেও এবার মুখ খুললেন শাওন। হুমায়ূন আহমেদ, মাজহারুল ইসলাম ও নিজের একটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে সর্ম্পকের বিষয়টি খোলাসা করেন তিনি।

মেহের আফরোজ শাওন তার দীর্ঘ স্ট্যাটাসে আরো লিখেন, ‘এই মানুষটার সঙ্গে আমাকে নিয়ে একটা কথা টুকটাক শোনা যায়। কথাটা বেশ অস্বস্তিকর। তার স্ত্রী আর আমি বিষয়টা নিয়ে চরম খুনসুটি আর হাসাহাসি করলেও আমাদের সঙ্গে নতুন বন্ধুত্ব হওয়া কেউ কেউ একটু ইতং বিতং করে প্রসঙ্গটা তোলেন আর অপ্রস্তুত হয়ে বলেন, ‘আহা! বাইরে থেকে কি ভুল ধারণা নিয়েই না ছিলাম!’

বলছিলাম আমার সবচাইতে কাছের প্রতিবেশী, হুমায়ূন আহমেদের পুত্রসম বন্ধু প্রকাশক মাজহারুল ইসলাম ভাইয়ের কথা। মাজহার ভাইয়ের স্ত্রী স্বর্না ভাবী আমার সবচেয়ে কাছের সহচর। দিনের মধ্যে ৩/৪ বার দেখা করে সারাদিনের প্যাঁচাল নিয়ে বকরবকর না করলে আমাদের পেটের ভাত হজম হয়না। এই অসাধারণ মানুষটির স্বামীর সঙ্গে নাকি আমার প্রেম!’

তিনি আরো লিখেন, ‘কর্কট রোগের চিকিৎসা চলাকালীন সময় হুমায়ূন আহমেদের আপন ভাইদের যে দায়িত্ব ছিল সেই দায়িত্ব তিনিই পালন করেছেন। কখনও বাজার করে আনা তো কখনও তার হুমায়ূন ভাইয়ের পছন্দের খাবারটা রান্না করে ফেলা যেন কেমোথেরাপির পর তিনি একটু খেতে পারেন। প্রায়ই রাতের বেলা একবছরের নিনিতকে কোলে নিয়ে হেটে ঘুম পাড়াতেন যাতে করে আমি একটু বিশ্রাম পাই। হাসপাতালে হুমায়ূনের বিছানার পাশে একরাত আমি জাগি তো আরেক রাত তিনি জাগেন, আমার মতো করেই হুমায়ূন আহমেদের পা টিপে তাকে ঘুম পাড়িয়ে দেন। রক্তের সম্পর্ক না থেকেও তিনি হুমায়ূন আহমেদের ছোট ভাই। আমি ওনাকে দেবরের মতো ভালোবাসি।’ 

মাজহারুল ইসলামের পরিবারের সকল অনুষ্ঠানে নিজের উপস্থিতি নিয়ে লিখেন, ‘নিনিত, নিষাদ আর আমার ছোট্ট পরিবারটি ছাড়া তাদের পরিবারের কোনো উৎসবই পূর্ণ হয় না! তাদের সব আনন্দের ভাগ যেন আমাদের না দিলেই নয়! তাদের ছেলে দুটিও বড়ভাইয়ের মতোই আগলে রেখেছে আমার নিনিত-নিষাদকে। নিনিত, নিষাদ আর আমি- আমরা ৩ জনই তাদের পরিবারের সব্বাইকে অনেক অনেক ভালোবাসি।’

মাজহারুল ইসলামের জন্মদিন উপলক্ষে শাওন নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে এসব কথা লিখেন। তিনি জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেন, ‘প্রিয় মাজহার ভাই আপনার জন্মদিনে অনেক শুভকামনা। যে স্নেহ আর সম্মানে আপনি আমাদের জড়িয়ে রেখেছেন তা শতগুণ হয়ে আপনার পরিবারকে ঘিরে রাখুক।’