ভারতে অ্যামনেস্টির কার্যক্রম স্থগিত

২৯ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ || ০৪:৪৭:৪১
7
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্কঃ
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ভারতে তাদের সব ধরনের কার্যক্রম স্থগিত করেছে। সংগঠনটির অভিযোগ, ভারত সরকার তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করেছে। এ কারণে দেশটিতে কার্যক্রম বন্ধে বাধ্য হয়েছে সংগঠনটি। মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

লন্ডনভিত্তিক এই আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনটি এক বিবৃতিতে বলেছে, চলতি মাসের শুরুর দিকে ভারতে তাদের ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়। তাই তারা দেশটিতে অধিকাংশ কর্মীকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়।

FILE – In this Tuesday, Feb. 5, 2019, file photo, a woman walks past the Amnesty International India headquarters in Bangalore, India. The Human rights watchdog said on Tuesday, Sept. 29, 2020, that it was halting its operation in India, citing reprisals from the government and the freezing of its bank accounts. Its announcement comes at a time amid growing concerns over the state of free speech in India where critics accuse Prime Minister Narendra Modi and his Hindu nationalist government of increasingly brandishing laws to silence human rights activists, intellectuals, filmmakers, students and journalists. (AP Photo/Aijaz Rahi, File)

বিবৃতিতে অ্যামনেস্টি দাবি করে, বিভিন্ন বিষয়ে প্রতিকূল প্রতিবেদনের জেরে তাদের বিরুদ্ধে ভারত সরকার এমন ব্যবস্থা নিয়েছে।

এ সংস্থার ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব জুলি ভেরার বলেন, ‘এটি ভারত সরকারের ভয়ঙ্কর ও লজ্জাজনক পদক্ষেপ। এর ফলে দেশটিতে সংগঠনটির মানবাধিকার বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো আপাতত থমকে গেছে। তবে ভারতে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে অ্যামনেস্টির অঙ্গীকার এবং সম্পৃক্ততার থেমে থাকবে না। সামনের দিনগুলোতে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল কীভাবে ভারতের মানবাধিকার আন্দোলনে ভূমিকা রাখতে পারে, তা খুঁজে বের করা হবে।

অ্যামনেস্টি জানায়, তারা ভারতীয় ও আন্তর্জাতিক আইন মেনেই কাজ করে আসছে। তাদের ব্যাংক হিসাব পুরোপুরি জব্দ করার বিষয়টি তারা জানতে পারে গত ১০ সেপ্টেম্বর। ফলে সব কাজ থেমে যায়। প্রচার ও গবেষণার চলমান সব কাজ স্থগিত করতে হয়।

এদিকে ভারত সরকারের দাবি, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনটি বেআইনিভাবে বিদেশি ফান্ড সংগ্রহ করছে।

এর আগেও ২০১৭ সালে একবার অ্যামনেস্টির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করেছিল ভারত সরকার। সে সময় আদালতে গিয়ে অ্যামনেস্টি কার্যক্রম চালানোর অনুমতি পেলেও তাদের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়। যা পরবর্তীতে আবার চালু হয়।