ইতিহাসে প্রথমবার আরবের ফুটবল ক্লাবে ইসরায়েলি খেলোয়াড়

12
Print Friendly, PDF & Email

স্পোর্টস ডেস্কঃ

সৌদি আরব তথা মুসলিম বিশ্বের সাথে ইসরায়েলের তেমন সুসম্পর্ক কখনোই ছিল না। জেরুজালেম থেকে শুরু করে বিভিন্ন ইস্যুতে তারা এড়িয়ে গেছে পরস্পরকে। তবে পাল্টাতে শুরু করেছে হাওয়া। শোনা যাচ্ছে মূলত কূটনৈতিক কারনেই এই সিদ্ধান্ত। তাই ইতিহাসে প্রথমবার আরবের কোন ক্লাবে নিয়ে আসা হলো ইসরায়েলি খেলোয়াড়কে।

কোনো আরব ক্লাব হিসেবে প্রথমবারের মতো ইসরায়েলি ফুটবলারকে দলে টেনেছে দুবাইয়ের ক্লাব আল নাসের। সেই ফুটবলার হলেন দিয়া সাবিয়া। ইহুদী অধ্যুশিত দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করে আনার দুই সপ্তাহের মধ্যেই ঘটল এই ঘটনা। চীনের গুয়াঞ্জু আর এন্ড এফ এর এই ২৮ বছর বয়সী আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডারকে দুই বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ করেছে আল নাসের। গণমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী এ জন্য ক্লাবটিকে ব্যয় করতে হচ্ছে ২.৫ মিলিয়ন ইউরোরও বেশি অর্থ।

নিজেদের টুইটারে ক্লাবের ৯ নম্বর জার্সি পরিহিত সাবিয়ার ফুটজেও পোস্ট করেছে আল নাসের। এ সময় আমিরাতের আল-মাকতুম স্টেডিয়ামে বল নিয়ে ড্রিবলিং করতে দেখা যায় তাকে। এক বিজ্ঞপ্তিতে ক্লাবটি জানায়, আজ সকালে ডাক্তারি পরীক্ষায় সফলতার সঙ্গে উত্তীর্ণ হওয়ার পর আল নাসের আগামী দুই বছরের জন্য দিয়া সাবিয়ার সঙ্গে চুক্তির কার্যক্রম সম্পাদন করেছে। এই চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগও রাখা হয়েছে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের সদস্য দেশ দুবাই প্রতিবেশী ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করেছে। এর পরপরই গলফ দেশের কোন ক্লাব হিসেবে প্রথম সাবিয়াকে এমন চুক্তির আওতায় আনল আল নাসের। ফিলিস্তিন বংশোদ্ভুত সাবিয়া উত্তর ইসলাইলে জন্ম গ্রহণ করেছেন। ২০১২ সালে মাক্কাবি তেল আবিবে যোগ দেয়ার আগে তিনি যুব ক্লাবে খেলতেন।

২০১৪ সালে মাকাবি নেতানিয়াতে যোগ দেয়ার আগে পর্যন্ত তিনি ইসরাইলের বিভিন্ন ক্লাবে খেলেছেন। বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় ১১১ ম্যাচে অংশ নিয়ে এ পর্যন্ত ৫০টি গোল করেছেন সাবিয়া। তন্মধ্যে ২০১৮ সালে গোল করেছেন ২৪টি। তিনি ইসরাইল জাতীয় দলের হয়ে ১০টি ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন। গুয়াঞ্জুতে তার পেছনে ব্যয় হয়েছিল চার মিলিয়ন ইউরোরও বেশি পরিমাণ অর্থ।