খাগড়াছড়িতে ডাকাতিকালে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী গনধর্ষনের ঘটনার ক্লু উদঘাটন

21
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল হাসান রাকিব, খাগড়াছড়ি:
খাগড়াছড়িতে দুধর্ষ ডাকাতি এবং বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নারীকে (২৬) গনধর্ষনের ঘটনার ক্লু উদঘাটন করেছে পুলিশ। গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িতরা পেশাদার অপরাধী। তাদের বিরুদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধে একাধিক মামলা রয়েছে। অস্ত্র, ডাকাতি, চুরি ও ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধে সাজাওভোগ করেছে তারা। জেলখানায় থাকা অবস্থায় তাদের পরিচয় হয়। জেলখানা থেকে বের হয়ে আসামিরা সংঘবদ্ধভাবে বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় পুলিশ খাগড়াছড়ি ও চট্রগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে আটক করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা দোষ স্বীকার করেছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার কার্যলয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ এসব তথ্য জানান।

এ সময় তিনি আরও জানান, ইতিমধ্যে আটককৃত ৭ জনের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ডাকাত দলের ব্যবহৃত অস্ত্র, সিএনজি এবং লুন্ঠিত বেশ কিছু মালামাল। মূলত, পূর্বপরিকল্পিতভাবে তারা ডাকাতি এবং ধর্ষণের উদ্দেশ্যে এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ আরো জানান, আটককৃতরা সকলেই পেশাদার অপরাধী। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ধর্ষণ, ডাকাতি, চুরির একাধিক মামলা র‍য়েছে। জেলখানায় থাকা অবস্থায় একে অপরের সাথে পরিচয় হয়।

উল্লেখ্য, গত বুধবার গভীর রাতে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের বলপাইয়া আদাম এলাকায় একটি ঘরে পরিবারের সকলকে বেঁধে ডাকাতিকালে প্রতিবন্ধী নারীকে (২৬) গণধর্ষণ করে অপরাধীরা।

এ ব্যাপারে থানায় পৃথক দুটি মামলা করেছেন নির্যাতিতার মা। ঘটনার পর থেকে সারাদেশে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জড়িতদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।