বিতর্কিত সীমান্তে সেনা মোতায়েন বন্ধে সম্মত ভারত- চীন

9
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্কঃ
সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েক দফায় সীমান্তে সংঘর্ষে জড়িয়েছে ভারত ও চীনের সেনারা। তবে এমন পরিস্থিতির ইতি টানতে বৈঠকে বসে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুই দেশ। সেনা কমান্ডার পর্যায়ের ষষ্ঠ রাউন্ড বৈঠক শেষে দুই দেশ যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় আর অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করবে না কেউই। সেইসঙ্গে সীমান্তে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে উদ্যোগ নেবে নয়াদিল্লি ও বেইজিং।

গত জুনে লাদাখে চীনা বাহিনীর আগ্রাসনের পর থেকে সীমান্তে উত্তেজনা চরমে। একাধিকবার ছোটখাটো সংঘর্ষে জড়িয়েছে দুই দেশের সেনাবাহিনী। কখনও প্যাংগং লেক, কখনও দেপসাংয়ে চীনা বাহিনী নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে চেয়ে পিছু হঠেছে। কখনও ভারতীয় সেনার শক্তির কাছে হার মেনেছে। তবে চেষ্টা ছাড়েনি।

ভৌগোলিকভাবে তীব্র প্রতিকূল লাদাখে ভারতীয় সেনার টহলদারিতে বাধা তৈরির চেষ্টাও করেছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি। চোখে চোখ রেখে লড়াই করে দেশের ভূখণ্ডকে সুরক্ষিত রেখেছেন ভারতীয় সেনাবাহিনী। দুই দেশের প্রতিরক্ষা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের মধ্যেও আলোচনায় সীমান্তে উত্তেজনা কমেনি।

এমন পরিস্থিতিতে সোমবার থেকে কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকে বসেছে ভারত-চীন। সেখানে মঙ্গলবার ষষ্ঠ রাউন্ড বৈঠক শেষে দুই দেশই কয়েকটি বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, সীমান্তে কোনও দেশই অতিরিক্ত সেনা পাঠাবে না।

এছাড়া সীমান্তে স্থিতাবস্থা, শান্তি ফেরাতে উদ্যোগী হবে দুই দেশই। আর তার জন্য যা যা পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন, বেইজিং এবং নয়াদিল্লি প্রাথমিক স্তর থেকেই তা গ্রহণ করতে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছে। পরবর্তী পর্যায়ের বৈঠকে এসব আলোচনা আরও এগোতে পারে বলে সূত্রের খবর।