সালমান শাহ সম্পর্কিত ১০ টি আশ্চর্য তথ্য

১৯ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ || ০৩:০৩:০২
15
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্কঃ

সালমান শাহ। নামটাই ব্র্যান্ড। যখন ছিলেন এবং আজকের এই দিনে তার জনপ্রিয়তা চিরকাল উর্ধমুখী। ধূমকেতুর মত আচমকা এসেছিলেন, চলেও গিয়েছিলেন কাউকে কিছু বোঝার সুযোগ না দিয়ে। ধারণা করা হয়েছিল, চলচ্চিত্র অঙ্গনে আন্তর্জাতিক খ্যাতির চূড়ায় পৌঁছাতে পারতেন ঢাকাই সিনেমার এই ‘স্টাইল অবতার’, যাকে এক নজর দেখার জন্য পাগল হয়েছিল হাজারও তরুণী। তার অভিনীত ২৭ টি সিনেমার একটিও ফ্লপ ছিল না। এও কি এক অত্যাশ্চর্য ব্যাপার নয়?

তার এই সংক্ষিপ্ত জীবনটাই ঢুকে আছে আমাদের সকলের পুরোজীবনে। যারা তাকে দেখেছি এবং দেখিনি। তার সম্পর্কে ১০ টি ফ্যাক্ট চলুন জেনে নেয়া যাক-

১# ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমা দিয়ে ঢালিউডে সালমান শাহ’র যাত্রা শুরু, এবং প্রথম সিনেমাতেই বাজিমাত! অবশ্য আমির খান-জুহি চাওলা অভিনীত মূল সিনেমা ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তাক’ ছিল সালমান শাহ’র অনেক পছন্দের সিনেমা। এর রিমেকে অভিনয় করার আগেই সালমান হিন্দি সিনেমাটি দেখে ফেলেছিলেন মোট ২৬ বার!

২# ১৯৯৩ এ রূপালি পর্দায় অভিষেক হলেও ক্যামেরার সামনে এরও এক দশক আগে থেকে কাজ করেছেন সালমান শাহ। শুরুটা হয়েছিল ১৯৮৩ সালে ‘ইস্পাহানি গোল্ডস্টার টি’ এর বিজ্ঞাপন দিয়ে। পরে মাত্র ১৪ বছর বয়সে ১৯৮৫ সালে অভিনয় করেন বিটিভির ‘আকাশ ছোঁয়া’ নাটকে।

৩# নায়ক, মডেল, ফ্যাশন আইকন- এত সব পরিচয়ের ভিড়ে আরও একটি পরিচয় আছে সালমানের, তিনি গানও গাইতেন। রীতিমত ছায়ানট থেকে পল্লীগীতি শিখেছেন ১৯৮৬ সালে। প্লে ব্যাক করেছেন ‘প্রেমযুদ্ধ’ এবং ‘ঋণশোধ’ সিনেমা দুটিতে।

৪#  সালমান-শাবনূর নব্বই এর দশকের এখন পর্যন্ত সবচাইতে সফল এবং জনপ্রিয় জুটি হিসেবে স্বীকৃত। সে সময়ের পত্র-পত্রিকা তাদের দুজনের নামে অনেক রসালো খবর ছাপলেও সালমানের কাছে শাবনূর ছিলেন তাঁর ‘পিচ্চি বোন’। নিজেদের জুটি নিয়ে শাবনূর বলেছিলেন, ‘আমাদের দুজনের বোঝাপড়াটা ছিল চমৎকার। বলতে পারেন, একে অন্যের চোখের ইশারা বুঝতে পারতাম।’

৫# পর্দার রোমান্টিক নায়ক পর্দার বাইরে ছিলেন অত্যন্ত চঞ্চল। চিত্রনায়ক রিয়াজ স্মৃতিচারণ করে বলেন, শুটিং এর ফাঁকে নকল বন্দুক দিয়ে সবার দিকে তাক করে বাচ্চাদের মত মজা নিতেন সালমান শাহ। রুমাল পেঁচিয়ে সহকর্মীদের গুলতির মত করে মারতেন, সালমান শাহকে এরকম কিশোর আনন্দে মাততে দেখেছিলেন শাবনূর।

৬#  ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমায় সালমানের সাথে অভিষেক হয়েছিল চিত্রনায়িকা মৌসুমিরও। আর তাদের পর্দার রসায়ন দর্শক ভালো না বেসে যাবে কোথায়, তারা যে স্কুল জীবন থেকেই ছিলেন বন্ধু! খুলনা বয়রা মডেল হাই স্কুলে সহপাঠী হিসেবে পড়াশোনা করেছেন ইমন আর আরিফা, যারা বছর পনের পর পরিচিতি পান সালমান শাহ-মৌসুমি নামে।

৭# হানিফ সংকেত ১৯৮৫ সালে উপস্থাপনা করতেন ‘কথার কথা’ নামে একটি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান। সেখানে হানিফ সংকেতরই গাওয়া ‘নামটি ছিল তার অপূর্ব’ গানে মডেল হয়েছিলেন সালমান শাহ। গানের গল্পে সালমান ছিলেন সম্ভাবনাময় এক তরুণ, যে কিনা মাদকে আসক্ত হয়ে সবকিছু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

৮# সালমান-মৌসুমি একসাথে অভিনয় করেছিলেন চারটি সিনেমাতে। কিন্তু ছোটকালের দুই বন্ধুর মধ্যে সামান্য এক ব্যাপারে মনোমালিন্য দেখা দেয়। বরিশালে একটি হোটেলে সিনেমা প্রচারণার কাজের জন্য থেকেছিলেন সিনেমার পুরো টিমের সাথে। সেখানে অ্যাটাচড বাথরুমের রুমে থাকা নিয়ে মৌসুমির সাথে বাকবিতণ্ডার পর একসাথে আর সিনেমা করেননি দুজন। অবশ্য সালমানের মৃত্যুর আগেই সে মনোমালিন্যের অবসান হয়েছিল।

 ৯# একদম প্রথম দেখাতেই সালমানকে মনে ধরেছিল ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমার পরিচালক সোহানুর রহমান সোহানের। নতুন মুখের সন্ধানে থাকা সোহান একদিন খোঁজ পান ইমনের, দেখা করেন সে সময়ের ম্যাকডোনাল্ড রেস্তোরাঁয়। সিসিটিভি ক্যামেরার মনিটরে সালমানকে এক নজর দেখেই সোহান উল্লাস করে ওঠেন নিজের সিনেমার নায়ক পেয়ে গেছেন বলে।

১০# সিনেমার নায়ক হওয়ার আগেও সালমান শাহ ছিলেন সিনেমা পাগল এক ভক্ত। ছোটবেলায় বাবার ভিসিআরে প্রচুর সিনেমা দেখতেন তিনি। ‘শোলে’ আর ‘নুড়ি’ ছিল তাঁর প্রচণ্ড পছন্দের সিনেমা।