ওরাকল-টিকটকের চুক্তি পছন্দ হয়নি ট্রাম্পের

10
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্ক:
চীনা খুদে ভিডিও তৈরির অ্যাপ টিকটক যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দাদের ওপর নজরদারি চালিয়েছে, তথ্য চুরি করার চেষ্টা করেছে; তাই মার্কিন কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে টিকটকের চুক্তি একেবারেই পছন্দ নয় বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

টিকটক এবং এর স্বত্বাধিকারী সংস্থা বাইটড্যান্সের সঙ্গে মার্কিন টেক জায়ান্ট ওরাকলের চুক্তি যে মেনে নিতে পারছেন না, সেটা এবার স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন ট্রাম্প। সংবাদ সংস্থা এএফপি এ খবর জানিয়েছে।

জানা গেছে, টিকটকের মালিকানা কেনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অন্যতম শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফটের প্রস্তাবই নাকি অন্যান্য সংস্থার চেয়ে এগিয়ে ছিল। কিন্তু গত রোববার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে জানা যায়, নিলামে পিছিয়ে গেছে মাইক্রোসফট; বরং ওরাকলের প্রস্তাব মনে ধরেছে বাইটড্যান্সের। তাই সরকারি অনুমোদন পেলে ওরাকলের সঙ্গেই চুক্তি সম্পন্ন করতে ইচ্ছুক টিকটকের স্বত্বাধিকারী এই সংস্থা।

হোয়াইট হাউস সূত্রের খবর, ওরাকলের সঙ্গে টিকটকের চুক্তি খুব একটা ভালো চোখে দেখেননি ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর বক্তব্য, টিকটক যেখানে জাতীয় নিরাপত্তায় হস্তক্ষেপ করেছে, সেখানে মার্কিন কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তাদের এই চুক্তি মেনে নেওয়া যাচ্ছে না। ট্রাম্প জানিয়েছে, তিনি নিজে এই চুক্তির প্রতিটি বিষয় খুঁটিয়ে দেখবেন, তারপরই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

ট্রাম্প সোজাসাপ্টা বলেছেন, মার্কিন বাসিন্দাদের যাবতীয় গোপনীয় তথ্য, ব্যবসা, বাণিজ্য ও তথ্যপ্রযুক্তি-সংক্রান্ত তথ্যে নজরদারি চালিয়েছে টিকটক। ট্রাম্পের দাবি, ব্যবহারকারীদের লোকেশন ডাটা (কোথায় অবস্থান করছে ব্যবহারকারী), ব্রাউজিং ও সার্চ হিস্ট্রিসহ যা যা জেনে ফেলা সম্ভব, টিকটক এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা ব্যবহারকারীদের সেসব তথ্য জেনে নিয়েছে। এসব ব্যক্তিগত ও গোপন নথি তারা চীনের কমিউনিস্ট পার্টিশাসিত সরকারের হাতেও তুলে দিয়েছে।

ট্রাম্প গতকাল সংবাদ সম্মেলনে জানান, গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী ওরাকলকে টিকটকের সংখ্যালঘিষ্ঠ শেয়ার দিয়ে সিংহভাগ শেয়ার নিজেদের মালিকানায় রাখতে চাইছে বাইটড্যান্স। কিন্তু এমন কিছুর ঘোর বিরোধী ট্রাম্প।

ট্রাম্প এ বিষয়ে বলেন, ‘আমাদের এটা পছন্দ নয়। আমি আপনাদের যেটুকু বলতে পারি তা হলো, আমার এটা পছন্দ নয়।’

এত দিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রে ডিজিটাল স্পেস দখলের লড়াই চলছিল কয়েকটি মার্কিন টেক জায়ান্টের মধ্যে। সে দৌড়ে এগিয়ে ছিল মাইক্রোসফট। বাজারে এমন খবরও প্রচার ছিল যে মাইক্রোসফটকেই টিকটকের মালিকানা দিতে বেশি আগ্রহী ট্রাম্প। কারণ, ডিজিটাল মার্কেটে অবৈধভাবে আধিপত্য ধরে রাখতে এখন মার্কিন কংগ্রেসের প্রশ্নের মুখে গুগল, অ্যাপল, ফেসবুক ও অ্যামাজন। রিচমন্ড ইউনিভার্সিটি স্কুল অব লর অধ্যাপক কার্ল টোবায়াস বলেছেন, চুক্তি অনুযায়ী ওরাকলের দায়িত্ব হবে যুক্তরাষ্ট্রে টিকটকের দেখভাল করা এবং তথ্যভাণ্ডার সংরক্ষণ করে রাখা। ওরাকল কীভাবে টিকটক চালাবে, সে ব্যাপারে বাইটড্যান্স হস্তক্ষেপ করবে না। কিন্তু এ চুক্তি শেষ পর্যন্ত কতটা ফলপ্রসূ হবে, সেটাই দেখা বিষয়।