শুধু শাবান মাহমুদ কেন টার্গেট?

১৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ || ১১:০৩:৫৫
15
Print Friendly, PDF & Email

লায়েকুজ্জামান, ফেসবুক থেকে:
আগে দেখেছি, ডিইউজে’র সময়ে এখন দেখছি, বিএফইউজের নির্বাচন কাছাকাছি আসলেই, অপপ্রচার শুরু হয় শাবান মাহমুদের বিরুদ্ধে। কেউ সামনে এসে দায়-দায়িত্ব নিয়ে কিছু বলেন না। গোপনে-আড়ালে, নেপথ্যে বসে কেউ কেউ অপপ্রচার চালান-কুৎসা রটান। এগুলো কাপুরুষদের কাজ।

ঢাকায় সাংবাদিকদের নানা ফোরামে শ’য়ে শ’য়ে নেতা আছেন। তাদের ক’জনকে সাংবাদিকদের দুর্দিনে পাওয়া যায়? কাছে পাওয়া যায়? না, সে হিসেবের খাতা খুবই বিরল। শাবান মাহমুদ সারা বছর একটি কাজ করেন। বাসা থেকে ইউনিয়নে এসে ফিরে বাসায় যাওয়ার ভাড়া নেই, অফিসে যাওয়ার ভাড়া নেই, দুপুরে না খেয়ে আছেন কিংবা বাসায় চাল-ডাল নেই- এমন অনেকেই শাবান মাহমুদের কাছ থেকে খালি হাতে ফিরেন না। এ সহযোগিতা শাবান সারা বছরই করেন।

করোনাকালীন দুর্যোগে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সহায়াতা এনে দেয়ার বিষয়ে শাবান মাহমুদের কোন ভূমিকা নেই এটা শুধু দুর্মখেরাই বলতে পারেন। ওই সহায়তা আদায়ে শাবান মাহমুদ লেগেছিলেন। সফল হয়েছেন। একজন শাবান মাহমুদ একদিনে সৃষ্টি হননি, বহু কাঠ-খড় পুড়িয়ে, আদর্শের দহনে জ্বলে জ্বলে খাটি হয়ে আঞ্চলিকতার গন্ডি পেরিয়ে গোটা সাংবাদিক সমাজের নেতা হয়েছেন। দেশের সবচে বহুল প্রচারিত কাগজের সাংবাদিক।

শুধু নেতাগিরি করেন না, শাবান মাহমুদ নিজের পত্রিকায় সাড়া জাগানো রিপোর্ট করেন, গবেষনামূলক বইও লিখেন। যারা অপ্রচার করছেন তারা একটু এগুলো হয়ে দেখান না। তাহলে অন্ধকারে বসে কুৎসা রটানোর দরকার হবে না, সাংবাদিকরাই আপনাদের বুকে টেনে নেবে। অনুপ্রবেশের বাস্তবতা কিন্ত রয়েছে, আওয়ামী লীগে যেমন আছে সাংবাদিকদের মাঝে নেই তা নয়।

ছোট্ট একটি দেশ আমাদের। কে কোথায় কি করতেন, কার বংশের কোন লোক কি করতেন, বাবা-মায়ের পরিচয়ও কিন্ত বের করা খুব যে অসম্ভব তা কিন্ত নয়। অপপ্রচার বন্ধ করুন। সাংবাদিকদের নেতা, সাংবাদিকরাই বেছে নেবে? খামাখা শাবান মাহমুদকে টার্গেট করে কোন লাভ হবে না।

লেখক: সিনিয়র সাংবাদিক।