বশেমুরবিপ্রবির নতুন উপাচার্য হলেন ঢাবি অধ্যাপক এ কিউ এম মাহবুব

২ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ || ০৯:১২:৫৯
20
Print Friendly, PDF & Email

জয়নাল আবেদীন জিহান, বশেমুরবিপ্রবি:
গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) নতুন উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. এ কিউ এম মাহবুব।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ বৃত্তি ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম সচিব সৈয়দ আলী রেজা স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলরের অনুমোদনক্রমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০০১ এর ধারা ১০(১) অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. এ কিউ এম মাহবুবকে (অবসরপ্রাপ্ত) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

উপাচার্য হিসেবে তার নিয়োগের মেয়াদ চার বছর হবে। পদের সমপরিমাণ বেতন-ভাতা ভোগ করবেন। পদ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সুযোগসুবিধা ভোগ করবেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করতে হবে এবং রাষ্ট্রপতি মনে করলে নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার পূর্বেই তার নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন বলেও আদেশে বলা হয়েছে।

২০০১ সালের ৮ জুলাই মহান জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ আইন প্রণীত হওয়ার পর ২০০১ সালের ১৩ জুলাই তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। ১৪ জুলাই ২০০১ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য হিসাবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক্স বিভাগের প্রফেসর ড. এম. খায়রুল আলম খানকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করলে তৎকালীন রাষ্ট্রপ্রতি ১৯ জুলাই তার নিয়োগ অনুমোদন করেন। ২০০২ সালের ১৫ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকল্পটি সম্পূর্ণ বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং উপাচার্য হিসাবে প্রফেসর খায়রুল আলম খানের নিয়োগটি বাতিল হয়ে যায়। পরবর্তীতে ২০০৯ সালের নভেম্বরে স্থগিত প্রকল্পটি পুনর্জীবিত হলে ২০১০ সালের ১৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনে তৎকালীন রাষ্ট্রপ্রতি মো: জিল্লুর রহমান প্রফেসর ড. এম খায়রুল আলম খানকে পুনরায় ৪ বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসাবে নিয়োগ প্রদান করেন এবং ২০১৪ সালে ১৩ ডিসেম্বর তার মেয়াদ শেষ হয়। ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫ সালে রাষ্ট্রপ্রতি মো: আব্দুল হামিদ বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবপ্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ড. খোন্দকার মোঃ নাসিরুউদ্দিনকে উপাচার্য হিসাবে ৪ বছরের জন্য নিয়োগ প্রদান করেন। কিন্তু ২০১৯ সালে ড. খন্দকার মো: নাসিরউদ্দিনের বিপক্ষে নারী কেলেঙ্কারি, দূর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহারসহ নানাবিধ অভিযোগের প্রেক্ষিতে ছাত্রছাত্রীদের দুর্বার আন্দোলনের কারণে উপাচার্য পদ থেকে অপসারণ করা হয়। এরপর খন্ডকালীন উপাচার্য হিসাবে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো: শাহজাহানকে নিয়োগ প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ৮টি অনুষদ, ৩২টি বিভাগসহ ১২০০০ শিক্ষার্থী নিয়ে সফলভাবে পরিচালিত হচ্ছে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টি শিক্ষার্থী ভর্তির দিক থেকে বাংলাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ৪র্থ তম।