কম খরচে ঘর সাজাবেন যেভাবে

২০ই Auguই, ২০২০ || ০১:৫৫:১২
17
Print Friendly, PDF & Email

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ

আমাদের জীবন তথা আচার সবসময়ই পরিবর্তন চায়। বেরোতে চায় একঘেয়েমি থেকে। প্রতিদিনের অজস্র কাজের মাঝে অল্প একটু ফুসরত পেলেই মনে হয়, শোবার ঘরটা একটু অন্যরকম হলে কেমন হতো। বসার ঘরে অমুক জিনিসটা রাখা যেত কি না, রিডিং রুমে কোন ধরনের লাইট হলে আরামদায়ক ইত্যাদি সব চিন্তা। সে সবের সমাধান নিয়েই আজকের পোস্ট।

ঘর সাজাতে আমরা ব্যবহার করি নিত্যনতুন ফার্নিচার। কিন্তু কতবার আর কেনা সম্ভব? অর্থের যথেচ্ছা ব্যবহারের সামর্থ্য আমাদের অধিকাংশেরই নেই। তাহলে কি ঘর সাজাবেন না? অবশ্যই সাজাবেন। বলতে গেলে একেবারেই নামমাত্র খরচে ঘর সাজানোর কয়েকটি উপায় জেনে নিন-

বদলে ফেলুন ফার্নিচারের অবস্থানঃ

মাঝে মাঝে সামান্য পুনর্বিন্যাস পুরো ঘরের আদল পালটে দিতে পারে! আসবাবপত্র গুলো নাড়াচাড়া করে দেখুন, নতুন করে সাজান। এতে ফ্লোর এর রঙ যেমন নষ্ট হয় না, তেমন ঘরেও আসে নতুনত্ব। কিছু আসবাব ঘর-বদল করুন, শো-পিস নতুন করে সাজান। নতুন আমেজ পেতে হলে সবসময় নতুন জিনিস কিনতেই হবে এমন কোনো কথা নেই।

বাঁধাই করুন পুরনো ছবিঃ

কত ছবি অ্যালবামে পড়ে থাকে দিনের পর দিন, খুলেই দেখা হয় না বহুদিন ধরে। ছবিগুলো অল্প খরচে বাঁধাই করে নিন, খোলা দেয়ালে মনের মত সাজান। ঘরের সৌন্দর্য বাড়ানোর পাশাপাশি আপনার স্মৃতিময় হাস্যোজ্জ্বল মুহূর্তগুলো আপনার ঘরকে রাঙ্গিয়ে রাখবে।

ঘরকে দিন প্রকৃতির সান্নিধ্যঃ

বাগান করার শখ যাদের আছে, তারা ঘরের বারান্দায়, ছাদে কমবেশি গাছপালা লাগিয়ে থাকেন। পুরোনো বোতল কেটে, বা টিনের কৌটোয় অথবা কাচের ছোট জারে ছোট গাছ বা লতাগুল্ম এনে সাজানো যায় ঘরের ভেতরটাও। বইয়ের তাকে, কিংবা জানালার কার্নিশে, টেবিলের ওপর বা আসবাবের পাশে অল্পস্বল্প সবুজের ছোঁয়া আপনার ঘরে নিয়ে আসবে সজীবতা।

আয়নাতে দেখুন ঘরঃ

ড্রেসিং টেবিল ছাড়াও ঘরে রুচিশীল আয়নার ব্যবহার আনতে পারে নতুন মাত্রা। দেয়ালজোড়া আয়না যেমন ঘরের আকার বড় দেখাতে ও আলোকিত করতে সাহায্য করে, তেমন আকর্ষণীয় ফ্রেমের ও ডিজাইনের আয়না রুমের শোভা বাড়াতে পারে বহুগুনে। বাজারে ও অনলাইনে কম খরচে সুন্দর যেসব আয়না পাওয়া যায়, সেগুলো কিনে ঘরের দেয়ালে মনের মতো করে সাজিয়ে নিতে পারেন।

ফ্রেমের বৈচিত্রঃ

আপনার হাতে করা কোনো শিল্প কিংবা ক্যালেন্ডারের পাতায় পছন্দের কোনো ছবি, ম্যাগাজিন-কাটিং অথবা সুন্দর র‍্যাপিং পেপার, স্কুলের বন্ধুদের লিখা টি-শার্ট, যা কিছু আপনার মনে আলোড়ন তোলে, করে ফেলুন ফ্রেমে বন্দী! ছবি তোলার কথা বলছি না,সত্যিকারের ফ্রেম; দেখবেন কিভাবে ড্রয়ারে, আলমিরায় পড়ে থাকা জিনিস আপনার দেয়ালে বৈচিত্র নিয়ে আসে! শুধু তাই নয়, ছোট বড় ফ্রেম দিয়ে সাজানো দেয়াল আপনার রুচিশীলতার বহিঃপ্রকাশ ঘটাবে।

শখের জমানো জিনিস যদি হয় অলংকারঃ

ছোটবেলা থেকে আমরা কমবেশি সবাই কিছু না কিছু জমিয়েছি। ডাকটিকেট থেকে শুরু করে মার্বেল, স্বচ্ছ পাথর, ঝিনুক, রঙ্গিন বোতাম ইত্যাদি বিভিন্ন জিনিস কাঁচের জার বা বোলে করে সাজিয়ে রাখতে পারেন। আগ্রহ থাকলে রি-সাইকেল করেও ঘর সাজানোর সামগ্রী তৈরি করে নিতে পারেন।

কাগজ কেটে আল্পনাঃ

আজকাল অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ফেসবুক পেইজে দেয়াল সাজানোর নানা রকম আলপনা পাওয়া যায়; এগুলো দামেও সাশ্রয়ী এবং দেখতেও দারুন। এগুলো ব্যবহারে খুব কম খরচে দারুন পরিবর্তন নিয়ে আসা যায় সাদামাটা দেয়ালে। কিংবা আপনার সৃষ্টিশীল মনকে দেখে নিতে পারেন। নিজেই কিনে আনলেন রঙিন সব কাগজ। ইচ্ছেমতো বানালেন প্রজাপতি আর প্রকৃতি। ব্যস, এরপর তা দেয়ালে উড়িয়ে দিন।

আলোর কারিকুরিঃ

ঘরে সামান্য কিছু লাইটিং ডিজাইন করে চমকে দিতে পারেন সবাইকে। ঘরে রাখতে পারেন যে কোন মুহুর্তে উৎসবের এক দারুন প্রস্তুতি। হোক শোবার ঘর কিংবা ওয়াশরুম। আলো যেকোন জায়গায় ভালো।