শ্রদ্ধা নিবেদন: যে পথে যাবেন ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে

১৪ই Auguই, ২০২০ || ১১:২২:৩৭
10
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট:
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসকে কেন্দ্র করে অনেকেই শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যাবেন রাজধানী ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে। সেখানে তারা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। আগামীকাল শনিবার ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে পৌঁছাতে কোন পথ দিয়ে চলাচল করতে হবে তা নির্ধারণ করে দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। এ ছাড়া নিরাপত্তার স্বার্থে নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

ডিএমপি এক নির্দেশনায় বলছে, অতিথিদের গমনাগমনের ক্ষেত্রে ভিভিআইপি, ভিআইপি, সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ (ধানমণ্ডি ২৭ নম্বর ক্রসিং), মিরপুর রোড (মেট্রো শপিংমল মোড়), ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরের পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ এবং একই পথে প্রস্থান করবেন।

নির্দেশনায় আরো বলা হয়েছে, বিভিন্ন দল, প্রতিষ্ঠান এবং সর্বসাধারণের একমুখী গমনাগমনের নিমিত্তে রাসেল স্কয়ার থেকে ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরের পূর্ব প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করে পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে বের হবেন।

ডিএমপি বলছে, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর ও বনানী কবরস্থান এলাকায় আগতদের গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য নির্ধারিত স্থান রাখা হয়েছে। মিরপুর রোড ও ধানমণ্ডি ৩২-এর চতুর্দিকে মোটরসাইকেল পার্কিং নিষেধ।

কীভাবে প্রবেশ করতে হবে তা জানিয়ে ডিএমপি নির্দেশনায় বলছে, ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা প্রত্যেক ব্যক্তিকে হ্যান্ড মেটাল ডিটেকটর দিয়ে তল্লাশি করে আর্চওয়ের ভেতর দিয়ে প্রবেশ করতে হবে। একইভাবে বনানী কবরস্থানেও আর্চওয়ে, চেকপোস্ট থাকবে এবং সবাইকে তল্লাশির পর প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। আগত দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য তল্লাশি, ব্লক রেইড, চেকপোস্টের কার্যক্রম অব্যাহত আছে। গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি এবং পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। সেইসঙ্গে স্বেচ্ছাসেবক দলও থাকবে।

ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর ও বনানী কবরস্থানকেন্দ্রিক অনুষ্ঠানস্থল ও তার আশপাশের এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। ভেন্যুকেন্দ্রিক অস্থায়ী পুলিশ কন্ট্রোল রুম থেকে সার্বক্ষণিক সিসিটিভি মনিটর করা হবে। পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে আসা জনসাধারণকে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিতে ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরকেন্দ্রিক মাইকিং ব্যবস্থা থাকবে। আগত জনসাধারণের জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা থাকবে বলে জানিয়েছে ডিএমপি।

ডিএমপি বলছে, ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর ও বনানী কবরস্থানকেন্দ্রিক নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পোশাকে ও সাদা পোশাকে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। সেইসঙ্গে ডগ স্কোয়াড ও বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট দিয়ে সুইপিং করা হবে। ধানমণ্ডি লেকে মোতায়েন থাকবে নৌ পুলিশের টহল। ১৫ আগস্টের অনুষ্ঠানকে ঘিরে ধানমণ্ডি ৩২ কেন্দ্রিক নিরাপত্তায় মোতায়েন থাকবে ফায়ার টেন্ডার ও অ্যাম্বুলেন্স। প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য দুই ভেন্যুতেই থাকবে মেডিকেল টিম।