সসঙ্গীতজ্ঞ আলাউদ্দিন আলীর মৃত্যুতে সংগীত ও চলচ্চিত্রাঙ্গনে শোকের ছায়া

৯ই Auguই, ২০২০ || ০৯:৪০:৫৫
13
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক:
সংগীতের পুরোধা ব্যক্তিত্ব আলাউদ্দিন আলী চলে যাওয়ায় আরও এক কিংবদন্তি হারালো বাংলাদেশ। রোববার বিকেলে তার মৃত্যুতে সংগীত ও চলচ্চিত্রাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

কয়েক দশক ধরে গানের সঙ্গে জড়িত আলাউদ্দিন আলী। তার সৃষ্টিকর্মে অসংখ্য কালজয়ী গান এসেছে। তার সঙ্গ পেয়ে অনেকেই প্রতিভার বিকাশ ঘটিয়েছেন। প্রত্যেকেই আলাউদ্দিন আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছেন।

কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়না শোক জানিয়ে লিখেছেন, আরেকজন জিনিয়াস এবং অন্যতম সেরা মেধাবী মিউজিক ডিরেক্টর আলাউদ্দিন আলী পৃথিবী ছেড়ে বিদায় নিলেন। তার সুর ও কর্ম আমরা কোনোদিনও ভুলবো না। বিভিন্ন উপলক্ষে তার সঙ্গে আমার অনেক কাজ করা হয়েছে। তার আত্মার শান্তি ও জান্নাত কামনা করছি।

সংগীত পরিচালক ফরিদ আহমেদ লিখেছেন, বাংলাদেশের সংগীতের উজ্জ্বল নক্ষত্রের বিদায়ে আমরা গভীরভাবে শোকাহত।

কণ্ঠশিল্পী আসিফ ফেসবুকে সমবেদনা জানিয়ে লিখেছেন, আলাউদ্দিন আলী নিজেই ছিলেন ইতিহাস, তিনি রেখে গেলেন হাজারো ইতিহাস। আমার ছোট্ট জীবনে দেখা সবচেয়ে বড় মাপের সংগীতজ্ঞ তিনি। দেশকে ঋণী করে চিরতরে চলে গেলেন। রেখে গেলে অমর কিছু গান। আলী চাচা আপনার মাগফিরাত কামনা করছি।

ধ্রুব গুহ আলাউদ্দিন আলীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে তার আত্নার শান্তি কামনা করেছেন।

সংগীত শিল্পী কোনাল তার ফেসবুকে লিখেছেন, নানু… কিংবদন্তি, আল্লাহর কাছে তোমার আত্মার শান্তি কামনা করছি।

এর বাইরে গীতিকার কবির বকুল, সঙ্গীতশিল্পী আঁখি আলমগির, শফিক তুহিন, সাব্বির জামান, বাঁধন সরকার পূজা, কিশোর দাস, চলচ্চিত্র নির্মাতা অরুণ চৌধুরী, অভিনেত্রী তলামিকা কর্মকার, সিঁথি সাহা, ঐশী, গীতিকার ফয়সাল রাব্বিকীন, লুৎফুর হাসান, চলচ্চিত্র নির্মাতা এস এ হক অলিক, চিত্রনায়িকা নিপূন, রোমানা রশিদ, চিত্রনাট্যকার রুম্মান রশিদ খানসহ চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির পক্ষ থেকে আলাউদ্দিন আলীর চলে যাওয়ায় শোক প্রকাশ করেছেন।

এর বাইরে সংগীত, চলচ্চিত্র ও নাটকের অনেকেই আলাউদ্দিন আলীর চলে যাওয়ায় শোক জানিয়েছেন।

রোববার বিকেলে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর মহাখালীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। জানা যায়, সাড়ে ৫ টার দিকে আলাউদ্দিন আলীর মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার ভোরে শারীরিক অসুস্থতা বাড়লে আলাউদ্দিন আলীকে হাসপাতালের লাইফ সাপোর্ট রাখা হয়।

চিকিৎসক ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়েছিলেন। জানা যায়, তার শরীরে অক্সিজেন মাত্রা খুব কম ছিল। তীব্র শ্বাসকষ্ট অবস্থায় দ্রুত তাকে ভেন্টিলেটরে ব্যবস্থায় নেওয়া হয়েছিল। দীর্ঘদিন আলাউদ্দিন আলী ফুসফুসের প্রদাহ ও রক্তে সংক্রমণের সমস্যায় ভুগছিলেন।

৫ হাজারেরও বেশি গানে সুর করা এ সংগীত ব্যক্তিত্ব আলাউদ্দিন আলী অসংখ্য সম্মাননা ছাড়াও আটবার জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেছেন। তার তৈরি করা কালজয়ী কিছু গান হচ্ছে; ও আমার বাংলা মা তোর, সূর্যোদয়ে তুমি সূর্যাস্তেও তুমি ও আমার বাংলাদেশ, বন্ধু তিন দিন তোর বাড়ি গেলাম দেখা পাইলাম না, যেটুকু সময় তুমি থাকো কাছে, মনে হয় এ দেহে প্রাণ আছে, প্রথম বাংলাদেশ, আমার শেষ বাংলাদেশ, এমনও তো প্রেম হয়, চোখের জলে কথা কয়, আছেন আমার মুক্তার আছেন আমার ব্যারিস্টার, জন্ম থেকে জ্বলছি মাগো, ভালোবাসা যত বড় জীবন তত বড় নয়।