সুশান্তের মৃত্যু: জেরার মুখে রিয়া, মনে করতে পারছেন না অনেক কিছুই!

13
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্ক:
সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত অর্থ আত্মসাৎ মামলায় শুক্রবার কেন্দ্রীয় সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) দপ্তরে আট ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে জেরা করা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে। এর আগে ইডির জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হওয়ার জন্য আরও কিছুটা সময় চাইলেও চাপের মুখে হাজিরা দিতে হয়েছে তাকে।

ইডির তরফ থেকে রিয়াকে তার সম্পত্তি এবং ২টি ফ্ল্যাটের কাগজপত্র নিয়ে আসতে বলা হয়েছিল। কিন্তু অভিনেত্রী সেসব দলিল এবং তথ্য ছাড়াই শুক্রবার সকালে ইডির দপ্তরে হাজির হন। এই বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে রিয়া বলেন, তিনি ভুলে গিয়েছেন কোথায় ফ্ল্যাট-বাড়ির কাগজপত্র রেখেছেন।

৮ ঘণ্টা ধরে রিয়াকে যেসব প্রশ্ন করা হয়েছে, প্রায় সব প্রশ্নের উত্তরেই তিনি বলেছেন, ‘ঠিক মনে করতে পারছি না, কী হয়েছিল।’

রিয়া ছাড়াও জেরা করা হয়েছে রিয়ার ভাই সৌমিক এবং তার সাবেক ম্যানেজার শ্রুতি মোদিকে।

এ পর্যন্ত তদন্তে আরো যা যা অগ্রগতি হয়েছে:

রিয়ার কল রেকর্ডে দেখা গেছে ৮ জুন থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত সুশান্তের সঙ্গে রিয়ার একবারও কথা হয়নি।

সুশান্তের ডায়েরির ৬টি পাতা পাওয়া যায়নি। সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবার নিয়োগ করা আইনজীবী বিকাশ সিং মনে করেন এই ডায়েরিই সুশান্তের মৃত্যু রহস্য উন্মোচনে বড় ভূমিকা রাখতে পারে। তিনি প্রতিদিন ডায়রিতে মনের সব কথা লিখতেন। তাই তিনি কেন আত্মহত্যা করেছেন, কাউকে ঝুঁকি মনে করছিলেন কিনা, তা ডায়রিতে লেখা থাকার কথা

বিকাশ সিং মনে করেন, তদন্তের জন্য সুশান্তের মৃতদেহের এবং ময়নাতদন্তের ছবিগুলো কাজে লাগবে

মুম্বাই পুলিশের তদন্ত নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠছে।

২০ জুন থেকে ১৮ জুলাই, মোট চার বার বান্দ্রার ডিসিপি অভিষেক ত্রিমুখে আর রিয়ার মধ্যে ফোনে কথা হয়। তাদের মধ্যে এসএমএস বিনিময়ও হয়। অথচ বিহার পুলিশ যখন রিয়াকে খুঁজছিল, তখন মুম্বাই পুলিশ জানিয়েছিল রিয়া কোথায় তারা জানে না।