দেশে করোনায় করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্ত বেড়েছে, আরও ৩০ জনের মৃত্যু, সনাক্ত ১৩৫৬

৩ই Auguই, ২০২০ || ০৩:৫২:৫৮
17
Print Friendly, PDF & Email

স্পেশাল করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
দেশে একদিনে নতুন করে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে আরও ১৩৫৬ জনের দেহে। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্ত হলেন ২ লাখ ৪২ হাজার ১০২ জন। এছাড়া আক্রান্তদের মধ্যে আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ১৮৪ জন।

সোমবার (৩ আগস্ট) দুপুরে কোভিড-১৯ সম্পর্কিত নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

সারাদেশের নমুনা পরীক্ষার তথ্য তুলে ধরে নাসিমা সুলতানা জানান, করোনা ভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ২৩৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগের দিনের নমুনাসহ পরীক্ষা করা হয় ৪ হাজার ২৪৯ জনের। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ১১ লাখ ৯৩ হাজার ৭১৬ জনের। নতুন পরীক্ষা করা নমুনায় আরও ১ হাজার ৩৫৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এ নিয়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২ লাখ ৪২ হাজার ১০২ জন। আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৩০ জনের। ফলে ভাইরাসটিতে মোট মারা গেলেন ৩ হাজার ১৮৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ১০৬৬ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৩৭ হাজার ৯০৫ জন।

এর একদিন আগে রোববার (২ আগস্ট) দুপুরে আরও ৩ হাজার ৬৮৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮৮৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত এবং আক্রান্তদের মধ্যে আরও ২২ জনের মৃত্যুর খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদফতর।

এদিকে, পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ের্ল্ডোমিটারসের তথ্যমতে, সোমবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৯৩ হাজার ১১৪ জনের এবং আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৮২ লাখ ৫২ হাজার ২৭৫ জনের। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন টি ১৪ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮০ জন।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৫টি দেশে ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে জন্য ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয় সব সরকারি-বেসরকারি অফিস। কয়েক দফা বাড়িয়ে এ ছুটি ৩০ মে পর্যন্ত করা হয়। ছুটি শেষে করোনার বর্তমান পরিস্থিতির মধ্যেই ৩১ মে থেকে দেশের সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেয়া হয়। তবে বন্ধ রাখা হয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।