শুদ্ধাচার পুরস্কার পাচ্ছেন নিষ্ঠাবান প্রধান তথ্য কর্মকর্তা সুরথ সরকার

২৯ই জুন, ২০২০ || ১১:২৭:৫৭
22
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ করসপন্ডেন্ট, ঢাকা:
তথ্য মন্ত্রণালয়ের শুদ্ধাচার পুরস্কার পাচ্ছেন তথ্য অধিদফতরের নিষ্ঠাবান ও দক্ষ প্রধান তথ্য কর্মকর্তা সুরথ কুমার সরকার। এছাড়া তথ্য মন্ত্রণালয়ের আরও একজন কর্মকর্তা ও কর্মচারী এই পুরস্কার পাচ্ছেন।

তথ্য মন্ত্রণালয় ও আওতাধীন দফতরের মধ্য থেকে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করে আদেশ জারি করা হয়েছে।

সংস্থা প্রধানদের মধ্যে প্রধান তথ্য কর্মকর্তা এবং মন্ত্রণালয়ের গ্রেড-১ থেকে গ্রেড-১০ এর অন্তর্ভুক্ত কর্মকর্তাদের মধ্যে তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (প্রশাসন-১) মোহাম্মদ গোলাম আজম এবং গ্রেড-১১ থেকে গ্রেড-২০ এর কর্মচারীদের মধ্যে অফিস সহায়ক মো. আব্দুল আলীম চলতি অর্থবছরের শুদ্ধাচার পুরস্কার পাচ্ছেন।

১৯৮৪ সালের বিসিএস ব্যাচের তথ্য ক্যাডারের কর্তব্যনিষ্ঠাবান ও সৎ কর্মকর্তা সুরথ কুমার সরকার ২০১৯ সালের ২৭ জুন প্রধান তথ্য কর্মকর্তা নিয়োগ পান। এর আগে তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনের উপ-মহাপরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন।

‘শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান নীতিমালা, ২০১৭’ অনুযায়ী পুরস্কার হিসেবে তারা একটি সার্টিফিকেট এবং এক মাসের মূল বে নের সমপরিমাণ অর্থ পাবেন।

সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শুদ্ধাচার চর্চায় উৎসাহ দেয়ার লক্ষ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ‘শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান নীতিমালা, ২০১৭’ প্রণয়ন করে। নীতিমালার ৪ ধারা অনুযায়ী ১১টি ক্ষেত্র ও ১৯টি সূচক বিবেচনায় নিয়ে শুদ্ধাচার পুরস্কার দেয়ার জন্য তিনজন কর্মকর্তা-কর্মচারী নির্বাচন করা হয়।

শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ গুণাবলি হচ্ছে- পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা, সততার নিদর্শন, নির্ভরযোগ্যতা ও কর্তব্যনিষ্ঠা, শৃঙ্খলাবোধ, সহকর্মীদের সঙ্গে আচরণ, সেবাগ্রহীতার সঙ্গে আচরণ, প্রতিষ্ঠানের বিধিবিধানের প্রতি শ্রদ্ধাশীলতা, সমন্বয় ও নেতৃত্বদানের ক্ষমতা, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে পারদর্শিতা, পেশাগত স্বাস্থ্য ও পরিবেশবিষয়ক সচেতনতা, উদ্ভাবনী চর্চার সক্ষমতা, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে তৎপরতা, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার, স্বপ্রণোদিত তথ্য প্রকাশে আগ্রহ, উপস্থাপন দক্ষতা, ই-ফাইল ব্যবহারে আগ্রহ, অভিযোগ প্রতিকারে সহযোগিতা করা।