‘মেমসাহেবের’ নিমাই ভট্টাচার্য আর নেই

২৫ই জুন, ২০২০ || ০৫:৫১:৫৩
83
Print Friendly, PDF & Email

কাজী মেহেদী হাসান, লিটারেচার ডেস্কঃ

বাংলাসাহিত্যের বিশেষ কিছু উপন্যাস বা সাহিত্যকর্মের নাম নিতে হলে আপনি তাকে এড়িয়ে যেতে পারবেন না। এক নিঃশ্বাসে বলতে গেলে আসতে পারে ‘পদ্মা নদীর মাঝি’ ‘দেবদাস’ ‘শেষের কবিতা’ ‘কবি’ ‘কালবেলা’ তারপর? হ্যাঁ ‘মেমসাহেব’। মূলত এই শব্দটাকেই বাঙালির কাছে জনপ্রিয় করার কারিগর নিমাই ভট্টাচার্য আর নেই।

বৃহস্পতিবার দুপুরে তাঁর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ভারতীয় প্রকাশনা সংস্থা দে’জ পাবলিশিং। নিমাই ভট্টাচার্যের মৃত্যুতে শোক জানিয়ে প্রকাশনা সংস্থাটি বলেছে- জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক নিমাই ভট্টাচার্য তাঁর সাহিত্য পাঠকদের জন্য রেখে গেলেন।

জন্ম ১৯৩১ সালে, ৮৯ বছর বয়সে তিনি যাত্রা করলেন মহাজাগতিক সময়ের উদ্দেশ্যে। ‘মেমসাহেব’ উপন্যাস তাকে এনে দিয়েছিল তুমুল খ্যাতি। যা এই মর্ত্যের পৃথিবীতেও তার পায়ের দাগকে করেছে আরও স্পষ্ট, আরও অমুছনীয়।

কবির জন্ম ভারতে হলেও তার আদিনিবাস বাংলাদেশের যশোরে। যশোরের সম্মিলনী ইনস্টিটিউশনে ক্লাস নাইন পর্যন্ত পড়েছেন তিনি। তারপর ১৯৪৭ এর দেশভাগের সময় চলে যান কলকাতায়। পেশাগত জীবন শুরু হয় সাংবাদিকতা দিয়ে। তাঁর প্রথম উপন্যাস ছাপা হয় অমৃত পত্রিকায় ১৯৬৩ সালে। উপন্যাসটি পাঠকপ্রিয় হয়। ১৯৬৮ সালে প্রকাশ পায় ‘মেমসাহেব’ উপন্যাস। তাঁর প্রকাশিত উপন্যাসের সংখ্যা ১৫০টিরও বেশি।

মেমসাহেব উপন্যাসের প্রচ্ছদ

মেমসাহেবের জনপ্রিয়তা কতদূর গিয়েছিল তা আরও স্পষ্ট হয় উপন্যাসটির চলচ্চিত্রায়নের মাধ্যমে। ‘মেমসাহেব’ নামেই মুক্তি পায় ১৯৭২ সালে। কেন্দ্রীয় বাচ্চু চরিত্রে অভিনয় করেছেন উত্তম কুমার। এছাড়া আরও অভিনয় করেছিলেন মেমসাহেব হিসেবে অপর্ণা সেন। তবে এখানেই শেষ নয়, এরপরেও তাঁর অনেক উপন্যাসের চিত্রায়ণ হয়েছে। 

অমৃত পত্রিকায় প্রকাশিত হয় ‘রাজধানীর নেপথ্যে’ ছাপা হওয়ার পর লিখেছেন ‘রিপোর্টার’, ‘পার্লামেন্ট স্ট্রিট’, ‘ডিপ্লোম্যাট’, ‘মিনিবাস’, ‘মাতাল’, ‘ইনকিলাব’, ‘ব্যাচেলর’, ‘কেরানি’, ‘ডার্লিং’, ‘নাচনি’, ‘প্রিয়বরেষু’, ‘পিকাডিলী সার্কাস’, ‘কয়েদী’, ‘জংশন’, প্রবেশ নিষেধ, ‘ম্যাডাম’, ‘ককটেল’, ‘আকাশ ভরা সূর্য তারা’, ‘অ্যাংলো ইন্ডিয়ান’ ইত্যাদি উপন্যাস।

যে আলো হাতে নিয়ে তিনি দাঁড়িয়েছিলেন আজ অব্দি, তা লক্ষগুণ বিকিরিত হয়েছে দিক-বিদিক। মানুষের জন্য, বোধের জন্য। তা আরও ছড়িয়ে যাক উত্তরোত্তর এমন প্রার্থনাই রাখছে সমব্যথী নিউজ’বি পরিবার।