আজ থেকে শ্রীলঙ্কায় নিকাব পরা নিষিদ্ধ

27
Print Friendly, PDF & Email

শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলার পর দেশটিতে নারীদের নিকাবসহ মুখ ঢেকে রাখে এমন সব পোশাক নিষিদ্ধের প্রস্তাব ওঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বোরকাকে ‘নিরাপত্তায় ঝুঁকি ও মৌলবাদীর পতাকা’ বলে আখ্যা দিয়ে মুখে পর্দা করা নিষিদ্ধ করলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা।

বোরকা নিষিদ্ধ করতে কয়েক দিন আগে শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে একটি বেসরকারি প্রস্তাব পেশ করা হয়। পার্লামেন্ট সদস্য অশু মারাসিংঘে এক প্রস্তাবে বলেন, বোরকা শ্রীলঙ্কার মুসলিম নারীদের সনাতন পোশাক নয়। ইস্টার সানডের ওই হামলার পর থেকে দেশটিতে অনেক মুসলিমকেই বিভিন্ন স্থানে আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে। অনেকে আবার বাধ্য হয়েই বোরকা পরা বন্ধ করে দিয়েছেন ৷

নতুন এই নিষেধাজ্ঞার কারণে দেশটির মুসলিম নারীরা এখন থেকে আর নিকাব বা মুখ ঢেকে রাখে এমন কোনো পোশাক পরতে পারবেন না। তবে শুধু মাথায় ওড়না বা হিজাব পরতে পারবেন।

আজ সোমবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা বিশেষ ক্ষমতা বলে একটি নির্দেশিকা জারি করেন। যেখানে মুখ ঢেকে রাখে এমন সব ধরনের পোশাককে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। আজ সোমবার থেকেই এটি কার্যকর হবে বলে জানানো হয়েছে।

শ্রীলঙ্কার দৈনিক ডেইলি মিরর-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার ইস্টার সানডেতে হামলার শিকার নানা ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া আলামত অনুযায়ী গোয়েন্দারা ধারণা করছে, সিরিজ বোমা বিস্ফোরণে বোরকা পরা নারীদের একটি বড় দল অংশগ্রহণ করেছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশটিতে বোরকা ও নিকাব পরা নিষিদ্ধের প্রস্তাব ওঠে।

গত ২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কাতে পরপর আটটি বোমা হামলায় দেশটির নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ওই হামলায় একাধিক নারী বোরকা পরে অংশগ্রহণ করেছিল বলে ধারণা করছে গোয়েন্দারা। আর তাই নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই এবার সেখানে বোরকা পরা নিষিদ্ধ করতে এ পদক্ষেপ নিলো শ্রীলঙ্কা সরকার।