বাংলাদেশে প্রবেশে অন অ্যারাইভাল ভিসা ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ

১৪ই মার্চ , ২০২০ || ১০:৩৫:৪৬
6
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন নিউজ ডেস্ক:
প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিশ্বের সব দেশের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে প্রবেশে অন অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার (১৪ মার্চ) রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জরুরি সাক্ষাতের পর এ তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

তিনি জানান, মোট চারটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম সিদ্ধান্ত-ইউরোপের দেশসহ যেসব দেশ করোনায় বিপর্যস্ত অবস্থায় রয়েছে সেসব দেশের সঙ্গে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশের বিমান যোগাযোগ বন্ধ থাকবে। দ্বিতীয় সিদ্ধান্ত- যেসব দেশ ইতোমধ্যেই বাংলাদেশি নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সেসব দেশের নাগরিকদের বাংলাদেশে প্রবেশের ক্ষেত্রে ৩১ মার্চ পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা থাকবে। ভারতীয় নাগরিকদের ক্ষেত্রেও এ সিদ্ধান্ত প্রযোজ্য হবে। কারণ ভারতেও বাংলাদেশি নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, তৃতীয় সিদ্ধান্ত- আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিশ্বের সব দেশের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে প্রবেশে অন অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা বন্ধ থাকবে। চতুর্থ সিদ্ধান্ত- করোনা ভাইরাস উপদ্রুত দেশ থেকে যারাই দেশে আসবেন তাদেরকে বাধ্যতামূলকভাবে ১৪ দিনের কোরেনন্টাইনে থাকতে হবে।

ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, দেশের জনগণের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তার বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আরও অনেক দেশও করোনা মোকাবেলায় একই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বাংলাদেশও এই পরিস্থিতিকে অতি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মোট কতটি দেশের সঙ্গে বিমান চলাচল বন্ধ করা হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোন কোন দেশ করোনায় অতি মাত্রায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তার তালিকা অনুযায়ী দেশের নাম সুনির্দিষ্ট করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, করোনা ভাইরাস থেকে সৃষ্ট প্রাণঘাতী ‘কোভিড-১৯’ রোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৪৩৬ জনে।

ওয়ার্ল্ডওমিটার্সের (https://www.worldometers.info/coronavirus/) তথ্যানুসারে, সারা বিশ্বে শনিবার পর্যন্ত এ রোগে বিশ্বব্যাপী ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮১০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭২ হাজার ৫৩১ জন (মোট আক্রান্তের ৯৪ শতাংশ) পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এছাড়া ৬৭ হাজার ৮৪৩ জন বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৪৫টি দেশ ও অঞ্চলে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিনিয়ত করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়তে থাকায় এবং এ বিষয়ে সরকারি পদক্ষেপ অপর্যাপ্ত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বিশ্বব্যাপী চলমান এ সংকটকে বুধবার মহামারি ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তবে করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে বিভিন্ন দেশের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার ক্ষেত্রে এখনও খুব বেশি দেরি হয়ে যায়নি বলেও উল্লেখ করেছে সংস্থাটি।

এদিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনা ভাইরাসের ক্রমবর্ধমান প্রাদুর্ভাব মোকাবিলার জন্য দেশটিতে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। কারণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ‘কোভিড-১৯’ রোগে এ পর্যন্ত ১,৭০১ জন আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৪০ জন মারা গেছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস ইউরোপকে বর্তমানে বৈশ্বিক মহামারির করোনা ভাইরাসের ‘কেন্দ্রস্থল’ বলেছেন। ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ‘কোভিড-১৯’ রোগে ২৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা একদিনে সর্বোচ্চ মৃতের সংখ্যা। এছাড়া নতুন করে ১,২৬৬ জনসহ সর্বমোট ১৭,৬৬০ জন আক্রান্ত হয়েছেন।