চাল রাসায়নিক মুক্ত করন

34
Print Friendly, PDF & Email

রুটিনে বাঁধা জীবন। তাই বাড়ির বাজারের জন্য সময় বরাদ্দ থাকে এক-দুই দিন। এমনকি খাওয়ার চালটাও যে আগের মতো দেখে কিনবেন, সেই সময়টুকুও নেই। তাই দোকানিরা যে চাল দিচ্ছে তাই কিনে আনছেন। কিন্তু যে চালটা খাচ্ছি তা কি রাসায়নিক মুক্ত? কীভাবে বুঝবেন সাদা চালে আছে ক্ষতিকারক রাসায়নিক? সার ও কীটনাশক তো প্রতিটি জমিতেই দেয়া হয়, কিন্তু ধান থেকে চাল বানানোর সময়ে কতটা বিশুদ্ধ করে নেয়া যায় তাকে? বিশেষ কয়েকটা পদ্ধতি অবলম্বন করলেই চাল থেকে রাসায়নিক দূর করা যায়।

চাল ধোয়া

চাল পরিষ্কারের প্রথম ধাপ এটি। প্রথমেই একটি বড় পাত্রে প্রয়োজন অনুসারে চাল নিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। চাল ধুতে হবে পানিতে। অন্তত পাঁচ মিনিট পানি বদল করে চাল ধুয়ে ফেলুন।

চাল ভিজতে দিন

চাল ভাল করে ধোয়া হয়ে গেলে অন্তত ২০ মিনিট চাল ভিজিয়ে রাখুন। চালের মধ্যে থাকা ধুলো ময়লা তো বটেই এমনকি রাসায়নিক থাকলেও তা অনেকটাই বেরিয়ে যাবে এই পদ্ধতিতে।

নতুন পানিতে চাল ভেজানো

এবার ওই চাল ধোয়া পানি ফেলে দিন। আরো দুই-তিনবার ধুয়ে নিন ভিজা চাল। এই পদ্ধতিতে অন্তত ৮০ শতাংশ পরিষ্কার করা সম্ভব চালকে।

আধসেদ্ধ করুন

১০ মিনিট জন্য ধুয়ে রাখা চাল গ্যাসে বসিয়ে নিয়ে, আধসেদ্ধ অবস্থায় পানি ফেলে দিলে ৭৫ ভাগ রাসায়নিক মুক্ত হয়ে যায় চাল।

ভাত ফুটান

ভাল করে টগবগিয়ে ফুটান ভাত। খাবার আগে পুরো মাড়টাই ফেলে দিন। আপনার চালে যদি কোনো দূষিত পদার্থ বের হয়ে যাবে এতে।