গোপনীয়তা কোনো বিলাসপণ্য নয়: সুন্দর পিচাই

23
Print Friendly, PDF & Email

গোপনীয়তা বিলাসপণ্য হতে পারে না, যা শুধু প্রিমিয়াম পণ্য এবং সেবা কিনতে সক্ষম মানুষদের জন্য প্রযোজ্য হবে। নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক কলামে গোপনীয়তা ও ডাটা ইস্যুতে গুগলের কার্যক্রম তুলে ধরে এ কথা বলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সুন্দর পিচাই।

গোপনীয়তা ইস্যু কেন্দ্র করে গুগল ও ফেসবুকের তীব্র সমালোচনা করে আসছেন অ্যাপলের সিইও টিম কুক। নিউইয়র্ক টাইমসে লেখা কলামে অ্যাপল সিইওর সমালোচনার মোক্ষম জবাব দিয়েছেন সুন্দর পিচাই। কারণ অ্যাপল বরাবরই চড়া দামের প্রিমিয়াম পণ্য সরবরাহ করে আসছে। যে কারণে অ্যাপলের পণ্য এবং সেবা সব ধরনের গ্রাহক কিনতে পারেন না। অর্থাৎ সাধারণ প্রযুক্তিপণ্য ব্যবহারকারীদের উপেক্ষা করে অ্যাপল। এ ধরনের ব্যবসায় নীতির পক্ষে নন গুগল সিইও।

সুন্দর পিচাই তার কলামে লেখেন, আমরা গ্রাহক তথ্যের গোপনীয়তা ইস্যুকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি। ডাটা গোপনীয়তা আরো উন্নত করতে কাজ করছি। এ চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

কিছুদিন ধরে গ্রাহক তথ্য সংগ্রহ এবং বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের মতো কাজে ব্যবহারের কারণে সমালোচনার মুখে রয়েছে গুগল। ডিজিটাল বিজ্ঞাপন ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য গ্রাহক তথ্য বিশ্লেষণ করে যে গ্রাহক যেমন পণ্য পছন্দ করেন ঠিক তেমন বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

সুন্দর পিচাই গত ডিসেম্বরে যেসব প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান তথ্য সংগ্রহ করছে, তাদের হাত থেকে রক্ষায় ব্যবহারকারীদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। গোপনীয়তা বিষয়ে উদ্বেগের জেরে মার্কিন কংগ্রেসের এক শুনানিতে তিনি বলেছিলেন, গোপনীয়তা বিষয়টিকে আরো সহজ এবং ব্যবহারকারীদের নিয়ন্ত্রণ আরো বাড়াতে চান তিনি।

সুন্দর পিচাই লেখেন, সাধারণ মানুষ এখন অনেক সচেতন। তাদের ব্যক্তিগত তথ্য কীভাবে ব্যবহার হচ্ছে এবং কোথায় শেয়ার করা হচ্ছে, সে বিষয়ে তারা যথেষ্ট সচেতন। অনেকেই এখন নিজের মতো গোপনীয়তা জোরদার করছেন। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ভ্রমণকালে গোপনীয়তা নিয়ে আমার অনেকের সঙ্গে কথা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সাধারণ মানুষ গোপনীয়তাকে এখন মৌলিক অধিকারের মতো মূল্যায়ন করছেন।

তিনি জানান, গোপনীয়তা একটি ব্যক্তিগত বিষয়। প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানের উচিত গোপনীয়তা বিষয়ে গ্রাহকদের কাছে স্বচ্ছতা প্রদর্শন করা। গোপনীয়তার বিষয়ে সবার সমান অধিকার পাওয়া উচিত। কেউ প্রিমিয়াম পণ্য বা সেবা কিনে বেশি সুবিধা পাবেন, সেটা হতে পারে না।

বহুজাতিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে তথ্য সংগ্রহ, ব্যবহার ও বিক্রি নিয়ে সমালোচনার মুখে পিচাই এ ধরনের লেখা প্রকাশ করেছেন। গুগলের বিরুদ্ধেও ব্যবহারকারীর অবস্থানগত তথ্য সংগ্রহ, সফটওয়্যারের নিরাপত্তা ত্রুটির কারণে লাখো গুগল প্লাস ব্যবহারকারীর তথ্য বেহাত হওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

গুগল গোপনীয়তা জোরদারে নিজেদের সেবায় আরো উন্নত টুল যুক্ত করেছে। এর মধ্যে অটো ডিলিট কন্ট্রোল ও অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন সুবিধা আনা হয়েছে। গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষায় আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি কাজে লাগানো হচ্ছে।