এক সাথে পোড়ান হলো তিন উপাচার্যের কুশপুত্তলিকা

17

রাবি করসপন্ডেন্ট, রাজশাহীঃ
নানা অনিয়ম-দূর্ণীতির প্রতিবাদে ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন উপাচার্যের কুশপুত্তলিকা এক সাথে পুড়িয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফেডারেশনের নেতাকর্মীরা।

রোববার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকের সামনে এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের আলোচিত উপাচার্যের অভিনব প্রতিবাদ কর্মসুচিতে কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়।

এর আগে প্রতিবাদী সমাবেশে ছাত্র ফেডারেশনের নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাঠামো স্বৈরতান্ত্রিক উল্লেখ করে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মতান্ত্রিকভাবে উপাচার্য নিয়োগ দেয়া হয় না। সরকারই নির্ধারণ করে দেয় উপাচার্য কে হবেন। সরকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে তাদের পুতুল উপাচার্য নিয়োগ দেয়।

তারা অভিযোগ করে আরও বলেন, বর্তমান উপাচার্যদের কথাবার্তা, আচার-আচরণ নিয়েও দেশব্যাপী চলছে সমালোচনা। উপাচার্য হয়ে তাদের একমাত্র কাজই হচ্ছে লুটপাট করে খাওয়া। শিক্ষাকে তারা বাণিজ্য হিসেবেই গড়ে তুলেছেন। আর শিক্ষার্থীরা হয়েছেন তাদের হাতের পুতুল। কিন্তু তারা জানেন না, লুটপাটের ভাগ দিয়ে ক্ষমতায় বেশিদিন টিকে থাকা যায় না।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মহব্বত হোসেনের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মিরান শাহ, মহানগর ছাত্র ফেডারেশনের আহ্বায়ক ইয়াসিন আরাফাত, যুগ্ম আহ্বায়ক জিন্নাত আরা প্রমুখ।