দেবর-ভাবি মুখোমুখি: স্পিকারকে রওশনের পাল্টা চিঠি

17

সিনিয়র করসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
বিরোধীদলীয় নেতার পদকে ঘিরে আবারো জাতীয় পার্টিতে শুরু হয়েছে উত্তেজনা, চলছে রশি টানাটানি। এ নিয়ে দলের ভেতরে বিদ্রোহ এখন তুঙ্গে। রয়েছে দল ভাঙার আশঙ্কাও। বিশেষ করে মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে জিএম কাদেরকে বিরোধী দলের নেতা বানানোর জন্য সংসদের স্পিকার বরারব চিঠি দেয়ার একদিন পরই পাল্টা চিঠি দিয়েছেন রওশন এরশাদ।

আজ বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে স্পিকারের কার্যালয়ে এ চিঠি পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এতে জিএম কাদেরের চিঠির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তা গ্রহণ না করারও অনুরোধ করা হয়েছে।

স্পিকারের দপ্তর থেকে রওশন এরশাদের চিঠি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। স্পিকার বরাবর রওশনের চিঠি পৌঁছে দেন রওশনপন্থী বলে পরিচিত ফখরুল ইমাম।

এদিকে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার রওশন এরশাদ তার গুলশানের বাসভবনে বেলা ১১টায় জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন।

মঙ্গলবার জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার জন্য পার্টির ১৫ জন এমপি স্বাক্ষরিত চিঠিটি স্পিকারের দপ্তরে পৌঁছে দেন কাজী ফিরোজ রশীদ। এসময় জাপার সংসদ সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারী, নাজমা আকতার, শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ, মেজর অব: রানা মোহাম্মদ সোহেল ও আদেলুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। চিঠিতে তারা ছাড়াও আরো স্বাক্ষর করেছেন- পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের, মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, অধ্যাপিকা মাসুদা রশিদ চৌধুরী, লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দীন চৌধুরী, গোলাম কিবরিয়া টিপু, নুরুল ইসলাম তালুকদার, সালমা ইসলাম ও পনির উদ্দিন আহমেদ।

চিঠির খবর রওশন এরশাদের কাছে পৌঁছলে তিনি দলীয় এমপিদের সন্ধ্যায় নিজ বাসায় আসতে বললেও মাত্র ৪ জন হাজির হন। বুধবার দুপুরেও নিজ অনুসারীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন রওশন। সেখানে ৪ জন এমপি উপস্থিত ছিলেন বলে বৈঠক সূত্রে জানা যায়।

বৈঠকে উপস্থিত এক নেতা জানান, পার্টি সংসদীয় কোনো সভা ছাড়া কোনো সিদ্ধান্ত কেউ নিতে পারে না। ম্যাডাম (রওশন) আগামী ৮ সেপ্টেম্বর সংসদে আমাদের সংসদীয় দলের সভা ডেকেছেন। সেখানেই আমরা বিরোধী দলের নেতার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।