‘ভারতে বিটিভি, দুই দেশের নৈকট্য আরও বাড়বে’

21

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
ভারতে বিটিভি’র সম্প্রচার শুরুর ফলে দুই দেশের মানুষের মধ্যে নৈকট্য আরও বাড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ফলেই গত সাড়ে ১০ বছরে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সম্পর্কের একটি নতুন মাত্রা উন্নীত হয়েছে। নতুন সেই মাত্রায় আজ থেকে ভারতে টিভি সম্প্রচার শুরু হয়েছে। এটি দুই দেশের মানুষের মধ্যে নৈকট্য আরও বাড়াবে।’

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রামপুরার বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) মিলনায়তনে এ সম্প্রচার কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

ভারতের দূরদর্শন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে দর্শকরা বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিটিভি দেখতে পারছেন উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে পৃথিবী আজ একটি গ্লোবাল ভিলেজ। এখন পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তের যেকোনো ঘটনা মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে। যখন সমস্ত পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ছে, তখন আমাদের টেলিভিশনকে একটি গণ্ডির মধ্যে আবদ্ধ রাখার কোনো কারণ থাকতে পারে না।’

তিনি বলেন, ‘যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দূরদর্শী চিন্তা ও সহায়তায় বিটিভি ভারতের মানুষ দেখতে পাচ্ছে। বিশেষ করে কলকাতা-পশ্চিমবঙ্গসহ বাংলা ভাষাভাষী মানুষগুলো আমাদের টিভি দেখতে পেলে মানুষে মানুষে যে নৈকট্য ও সম্পর্ক রয়েছে সেটি আরও দৃঢ় হবে।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতার সময় ভারত সরকার যে সহযোগিতা করেছে তা বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। ভারত সরকারের এই ত্যাগ আমি শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করি।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সুদৃঢ় নেতৃত্বের ফলে আজ ভারতে বিটিভির সম্প্রচার শুরু হয়েছে। আগামীতে সমগ্র বিশ্বেই দেখা যাবে।’

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাশ বলেন, ‘এই উদ্যোগ আমাদের দুই দেশের মানুষকে আরও কাছে আনবে। আমাদের বন্ধুত্বকে আরও দৃঢ় করবে।’

তথ্য সচিব আবদুল মালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিটিভির মহাপরিচালক হারুন অর রশিদ স্বাগত বক্তব্য দেন। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহার করে ভারতে বিটিভির এই সম্প্রচার শুরু হয়েছে।