শনিবার সারাদেশে এরশাদের চেহলাম, রংপুরে বরাদ্দ কোটি টাকা

14

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
আগামীকাল শনিবার (৩১আগস্ট) সারাদেশে একযোগে সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের চেহলামের আয়োজন করা হয়েছে। তার মৃত্যুর চল্লিশ দিনের মাথায় ২৪ আগস্ট এই আয়োজনের তারিখ নির্ধারিত ছিল। তবে জন্মাষ্টমীর কারণে পিছিয়ে ৩১ আগস্ট করা হয়।

মূল আয়োজন থাকছে প্রয়াত এরশাদের সমাধীস্থল রংপুরে। সেখানে ২০ হাজার লোকের সমাগম ধরে কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। রংপুরের আয়োজনে যোগ দেবেন সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বিরোধীদলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ ও পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

রংপুরের পরই গুরুত্ব পাচ্ছে রাজধানী ঢাকা। মহানগর উত্তর-দক্ষিণের জন্য অর্ধকোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। রাজধানীতে মোট ৩৪টি স্থানে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ, দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের শনিবার সকাল ৯টায় বাসভবন থেকে বের হয়ে প্রথমে মহানগর উত্তরের বিভিন্নস্থানে যোগ দেবেন। প্রথমে যোগ দেবেন ভাটারা থানার আয়োজনে। এরপর যথাক্রমে- খিলক্ষেত থানা, বিমানবন্দর থানা, উত্তরা পূর্ব থানা, উত্তরা পশ্চিম থানা, তুরাগ থানা, উত্তর খান থানা, দক্ষিণ খান থানা, পল্লবী থানা, রূপনগর থানা, শাহআলী থানা, মিরপুর থানা, কাফরুল থানা, ভাষানটেক থানা, ক্যান্টনমেন্ট থানা, দারুসসালাম থানা, আদাবর থানা, শেরে-বাংলানগর থানা, তেজগাঁও থানা, শিল্পাঞ্চল থানা, গুলশান থানা, বনানী থানা, হাতিরঝিল থানা, সাতরাস্তা মোড়ের আয়োজনে যোগদান করবেন।

দুপুর ১২টায় মোহাম্মদপুরের আয়োজনে যোগদানের মাধ্যমে ঢাকা মহানগর উত্তরের কর্মসূ‌চি সমাপ্ত করবেন। এরপর দক্ষিণের আয়োজনে অংশ নেবেন। এ সময় তার সঙ্গে যোগ দেবেন ঢাকা মহানগর দ‌ক্ষি‌ণের সভাপ‌তি সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা ও সাধারণ সম্পাদক জ‌হিরুল আলম রুবেল।

দক্ষিণের ব্যবস্থাপনায় দুপুর ১টায় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করবেন। এরপর দেড়টায় শাহজাহানপুরে, ২টায় যাত্রাবাড়ীতে, আড়াইটায় কদমতলী থানা এলাকায়, সাড়ে ৩টায় গেন্ডারিয়া থানা এলাকায়, ৪টায় লালবাগে, ৫টায় কলাবাগান, সবশেষে জাতীয় যুব সংহতি মহানগর দক্ষিণের আয়োজনে বিকেল ৫টায় ঢাকেশ্বরী ম‌ন্দির মাঠের আয়োজনে যোগ দেবেন।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারাদেশে জেলা উপজেলা পর্যায়ে চেহলাম পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১০ কোটি টাকার অধিক। এসব ব্যয় স্থানীয় নেতা ও সংসদ সদস্যদের মাধ্যমে সংকুলান করার কথা বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই সকাল পৌনে ৮টায় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর।