ঈদের সময় গণপরিবহন চলবে, বিধিনিষেধ শিথিলের সিদ্ধান্ত

23
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
কোরবানির ঈদের সময় এক সপ্তাহের জন্য শিথিল হচ্ছে লকডাউন৷ ঈদে বাড়ি যাওয়ার বিষযটি বিবেচনা করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নেওয়ার শর্তে গাড়ি চলাচলের সুবিধা দেওয়া হবে। তবে বন্ধ থাকবে সরকারি-বেসরকারি সব অফিস। ১৫ থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত এমন প্রজ্ঞাপন আসতে যাচ্ছে বলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

করোনা ভাইরাসের উচ্চ সংক্রমণের মধ্যেও কোরবানি ঈদে মানুষের স্বাভাবিক চলাচল ও পশুর হাটের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে কঠোর লকডাউনে শিথিলতা আসতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। তবে ঈদের পর আবারও ১৪ দিনের জন্য শাটডাউনে যাচ্ছে দেশ।

এ বিষয়ে শিগগিরই প্রজ্ঞাপন আসতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ আট দিনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক আসন ফাঁকা রেখে চলবে সকল গণপরিবহন।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে এ বিষয়ক নথি অনুমোদন হয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে এসেছে। যে কোনো সময় জারি হবে প্রজ্ঞাপন।

চলমান লকডাউন আগামী ১৪ জুলাই রাত ১২টা পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপ সামাল দিয়ে যাত্রা নির্বিঘ্ন করতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আগামী ২১ জুলাই বাংলাদেশে উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। রোববার (১১ জুলাই) দেশের আকাশে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে।

রোববার (১১ জুলাই) সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

হিজরি জিলহজ মাসের ১০ তারিখ ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা ঈদুল আজহা উদযাপন করেন।

সভায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী জানান, সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, আবহাওয়া অধিদফতর, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র, দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী রোববার বাংলাদেশের আকাশে হিজরি ১৪৪২ সনের জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। সোমবার (১২ জুলাই) থেকে জিলহজ মাস গণনা শুরু হবে। ২১ জুলাই দেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে।