গ্রীন ভয়েস বশেমুরবিপ্রবি শাখার বৃক্ষরোপণ ও পোস্টারিং কর্মসূচি

19
Print Friendly, PDF & Email

জয়নাল আবেদীন জিহান, বশেমুরবিপ্রবি:
পরিবেশ বাঁচাতে বিশ্বব্যাপী কাজ করে যাচ্ছে বিভিন্ন সংগঠন। হাতে নিচ্ছে বিবিধ কর্মসূচি। সচেতন করছে মানুষকে। তারই ধারাবাহিকতায় ‘গ্রীন ভয়েস বশেমুরবিপ্রবি’ হাতে নেয় বৃক্ষরোপণ ও পোস্টারিং কর্মসূচি।

গ্রীন ভয়েস হচ্ছে বাংলাদেশের পরিবেশবাদী একটি স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন। পরিবেশ রক্ষায় মানুষকে সচেতন করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে এ সংগঠনের কর্মীরা। ৫ জুন সারা বিশ্বে পালিত হয় পরিবেশ দিবস হিসেবে। এই দিবসকে কেন্দ্র করে গ্রীন ভয়েস বশেমুরবিপ্রবি শাখা বৃক্ষরোপণ ও পোস্টারিং কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে।

করোনা মহামারীতে শিক্ষাঙ্গন বন্ধ থাকলেও সংগঠনের সদস্যরা যার যার এলাকায় বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি সচেতনতামূলক বাণী সম্বলিত পোস্টার লাগায় বিভিন্ন দেয়ালে।

জনসচেতনতামূলক এই কর্মসূচির ব্যাপারে ‘গ্রীন ভয়েস বশেমুরবিপ্রবি’ শাখার সভাপতি আলী আহসান বলেন, “বৃক্ষরোপণ করার মাধ্যমে পরিবেশ রক্ষা করা সম্ভব, বৃক্ষ সরাসরি পরিবেশকে উপকৃত করছে। পোস্টারিং করার উদ্দেশ্য হলো মানুষকে পরিবেশ বিষয়ে সচেতন করা। একজন মানুষ একটি পোস্টার দেখে হয়তো তখনই কাজটা করবে না, কিন্তু বারবার দেখে ধীরে ধীরে এটি তার ভিতরে বদ্ধমূল হবে।

এছাড়াও গ্রীন ভয়েস- বশেমুরবিপ্রবি এর সদস্যদের পরিবেশ জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য আমরা একটি কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলাম, যেখানে পুরস্কার হিসেবে মহামূল্যবান বই উপহার দেওয়া হয়েছে।

গ্রীন ভয়েস একটি সংগঠন। দেশকে সবুজে পরিণত আমরা একা করতে পারবো না। তাই বৃক্ষরোপন, পোস্টারিং করে সকল মানুষকে সচেতন ও উদ্যমী হওয়ার আহবান জানাই। এভাবেই আমরা একটা সময় দেশকে সবুজের দেশে পরিণত করতে পারবো।

গ্রীন ভয়েস (একটি পরিবেশবাদী যুব সংগঠন) যার প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে দেশকে সবুজ দেশে পরিণত করা। বৃক্ষরোপণ; নদী রক্ষা; বলীয়ান নারী তৈরি; তরুণ সমাজকে আলোকিত করা; বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেওয়া; ধর্ষণ এর প্রতিবাদ; নারী-শিশু নির্যাতন রোধ করা; প্রযুক্তিগত উন্নয়ন; বন্যা, ঝড়, দরিদ্র, ঘূর্ণিঝড়, নদীভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষকে সহায়তা করে চলেছে। তাছাড়া বৃক্ষ, নদী, বন, উদ্যান ইত্যাদি রক্ষায় বিভিন্ন আন্দোলন করে চলেছে।

এককথায় গ্রীন ভয়েস স্বপ্ন দেখে টেকসই উন্নয়ন সমৃদ্ধ সবুজ বাংলাদেশের।”