রূপালী পর্দা থেকে যেভাবে রাজনীতির মাঠে কবরী

17
Print Friendly, PDF & Email

কালচারাল ডেস্ক:
বাংলা সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গেও জড়িত ছিলেন। ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্যও নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে ২০১৪ ও ২০১৮ সালেও দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন।

গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাতকারে কবরী জানান, বঙ্গবন্ধু সপরিবারে নিহত হবার পর নির্বাসিত জীবন কাটিয়ে ১৯৮১ সালে শেখ হাসিনা যখন দেশে ফেরেন, তখনই রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা জাগে তার। এরপর থেকেই বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের মাধ্যমে রাজনৈতিক মহলে পরিচিত হতে শুরু করেন তিনি।

পরবর্তী ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন পান কবরী।

এ বিষয়ে তখন কবরী বলেছিলেন, “স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের সময়ে মেইনস্ট্রিমের নেতাদের সঙ্গে কাজ করেছি। ওখান থেকে একটা ধারণা হল- যদি নমিনেশন পাই। শেষ পর্যন্ত শামীম ওসমান যখন পালালো, তখন আপা বললো- ‘আপনার তো ইলেকশন করার খুব ইচ্ছা… আমার পক্ষ থেকে এটা আপনার জন্য পুরস্কার’।”

কবরী বলেন, ‘ওই কথাটা বলে আমাকে আপা নমিনেশনের কাগজটা দিলেন। সে জন্য আই অ্যাম ভেরি গ্রেটফুল টু হার।’

প্রসঙ্গত, সবাইকে কাঁদিয়ে পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন বাংলা সিনেমার মিষ্টি মেয়ে কবরী। করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটে মারা যান এই অভিনেত্রী ও রাজনীতিক। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।