করোনার উর্দ্ধগতি: সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করেই চলছে কওমি মাদ্রাসা

12
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারের দেওয়া নির্দেশনা না মেনেই চলছে বেশকিছু কওমি মাদ্রাসা। রাজধানী ঢাকার বেশকিছু মাদ্রাসা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। এমনকি “সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী ৩০ মার্চ থেকে ২৪ মে পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সকল শাখা বন্ধ থাকবে” শিক্ষার্থী ও অভিভাবিকদের উদ্দেশে এ সংক্রান্ত নোটিস গেটে থাকার পরেও বন্ধ নেই মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষাদান কার্যক্রম।

অন্যদিকে, আলিয়া মাদ্রাসাগুলোতে সকল পরীক্ষা স্থগিত রাখা হলেও আবাসিক মাদ্রাসাগুলো “সীমিত পরিসরে” তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালু রেখেছে।

প্রসঙ্গত, ৬ এপ্রিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কওমিসহ সকল মাদ্রাসা বন্ধ রাখার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

ঢাকায় জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম নামে মাদ্রাসাটিতে প্রায় ৮হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। মাস্টার্স সমমানের “দাওরা-ই-হাদিস” পরীক্ষার অন্যতম একটি কেন্দ্র এটি, যেখানে গত ৩ এপ্রিল থেকে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে, যারা মাস্ক পরা কিংবা সামাজিক দূরত্ব কোনটাই না মেনে পরীক্ষা দিচ্ছেন।

তবে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে, এমনকি পরীক্ষার ছবিও তুলতে অনুমতি দেননি মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ।

একই চিত্র দেখা যায় মোহাম্মদপুরে অবস্থিত জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়ায় মাদ্রাসা, তমিরুল মিল্লাত কামিল মাদ্রাসা, মালিবাগের জামিয়া শরিয়া’, জামিয়া আরাবিয়া ইমদাদুল উলুম মাদ্রাসা, গেন্ডারিয়া ও রামপুরার তালিমুল কুরআন আল ইসলামিয়া মাদ্রাসাতেও।

সরকারি নির্দেশনা মানা হচ্ছে না কেন, এ প্রশ্নের জবাবে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, “বড় হুজুর” (অধ্যক্ষ বা প্রধান শিক্ষক) সরকারের কাছ থেকে পরীক্ষার জন্য অনুমতি নিয়েছে। এদের মধ্যে অনেকে আসন্ন রমজান মাসেও মাদ্রাসায় থেকে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে। যদিও মাদ্রাসা খোলা রাখা যাবে না বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বেফাকুল মাদ্রাসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মওলানা নুরুল আমিন জানান, পরীক্ষা বন্ধ রাখার কোনও নির্দেশনা সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়নি।

এছাড়া, আলিয়া মাদ্রাসার ভেতর গেন্ডারিয়য় দারুল উলুম আহসানিয়া ফাজিল মাদ্রাসা, মোহাম্মদপুরে অবস্থিত গাউসিয়া ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা ও বকশিবাজারের সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়াতেও পাঠদান কার্যক্রম চালু রাখতে দেখা গেছে।

তবে ভিন্নকথা বলছেন, মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের মহাপরিচালক কেএম রুহুল আমিন। তিনি বলেন, “সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী অন্যান্য স্কুল-কলেজের মতই মাদ্রাসাও বন্ধ রয়েছে। আবাসিক আলিয়া মাদ্রাসা খোলা রয়েছে কিনা এ বিষয়ে আমার কিছু জানা নাই।”

এরআগে, গতবছর আগস্টে কওমি মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখার অনুমতি দেয় সরকার।