গাজীপুর চৌরাস্তায় হেফাজত-পুলিশ সংঘর্ষে আহত ২০

22
Print Friendly, PDF & Email

গাজীপুর থেকে করসপন্ডেন্ট:
গাজীপুর মহানগরের চৌরাস্তা এলাকায় পুলিশের সঙ্গে হেফাজতে ইসলাম কর্মীদের ভেতর সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (২ এপ্রিল) মহানগরের চৌরাস্তা জামে মসজিদে জুমা’র নামাজ শেষে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বিক্ষোভ করতে যেতে চায় হেফাজত কর্মীরা। এসময় বাধা দিলে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে হেফাজত কর্মীরা।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ টিয়ারশেল ও গুলি নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে পুলিশের ৭ সদস্যসহ কমপক্ষে ২০জন আহত হন। জামে মসজিদ এলাকায় ওইসব ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শুক্রবার বেলা ১১টা থেকেই গাজীপুর চৌরাস্তা ও বোর্ডবাজার জামে মসজিদের চারপাশে পুলিশ সশস্ত্র সতর্ক অবস্থানে থাকে। জুমা’র নামাজের শেষে দুপুর ২টার দিকে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করতে হেফাজত কর্মীরা গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা জামে মসজিদ থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যেতে চায়। পরে পুলিশি বাধায় কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

স্থানীয়রা জানায়, এ ঘটনায় ওই দুটি মসজিদের আশপাশের এলাকা প্রায় দুই ঘন্টার মতো জনশূন্য ছিল। পরে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পরিবেশ স্বাভাবিক হয়।

গাজীপুর জেলা হেফাজতে ইসলামের সভাপতি মাওলানা মাসুদুল করিম জানান, বোর্ড বাজার এলাকায় তাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি সম্পন্ন হয়েছে। শুনেছি চৌরাস্তা জামে মসজিদ থেকে কে বা কারা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়েছে। তাদের মধ্যে আমাদের কেউ ছিল কি না মসজিদের ইমাম সাহেব নিশ্চিত করে বলতে পারেননি এবং তিনি কাউকে চেনেন না। সেখানে ১৫ থেকে ২০ জনের মতো আহত হয়েছেন। তবে ওই মসজিদে হেফাজতের পক্ষ থেকে কোনো কর্মসূচি ছিল না।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি’র) উপ কমিশনার (অপরাধ-উত্তর) শরীফুর রহমান জানান, হেফাজতে ইসলামের পূর্ব নির্ধারিত বিক্ষোভ কর্মসূচি তাদেরকে মসজিদ চত্বরেই পালনের অনুরোধ করা হয়। কিন্তু তারা মহাসড়কে উঠার চেষ্টা নিয়ে পুলিশের সাথে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পেছন থেকে হেফাজত কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। পরে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিপেটা, শতাধিক রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও গুলি করা হয়। এ ঘটনায় কেউ নিহত হননি। ইট-পাটকেলের আঘাতে পুলিশের সাত সদস্য আহত হয়েছেন। তাদেরকে স্থানীয় ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় জড়িত বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।