আপাতত দেশে লকডাউনের পরিকল্পনা নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

24
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লেও দেশে আপাতত লকডাউনের কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে বলা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে আমরা করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারব। বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, করোনা থেকে বাঁচা ও চিকিৎসার উপায় আমরা জানি। কিন্তু সব জেনেও আমরা মানি না। করোনা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে অর্থনীতি থাকবে না। সমস্যা সৃষ্টি হবে। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, করোনাকালীন সময়ে দেশব্যাপী সামাজিক দূরত্ব ও মাস্কপরা নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মানলে করোনা সংক্রমণ রোধ করা যায় জানা সত্ত্বেও মানুষ অসচেতনভাবে চলাফেরা করছে। আক্রান্তের সংখ্যা কমাতে চাইলে বিয়েসহ অন্যান্য অনুষ্ঠান করা যাবে না।

এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আব্দুল মান্নান, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের সচিব মো. আলী নূর, অ্যাসোসিয়েশন অব গ্রাসরুটস্ উইমেন এন্টারপ্রেনার্স বাংলাদেশের (এজিডব্লিউইবি) সভাপতি মৌসুমি ইসলাম প্রমুখ।

করোনায় সেবা দিয়ে সম্মাননা পেলেন ১০ নার্স:
করোনা মহামারিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা আক্রান্তদের সেবা দিয়ে সম্মাননা পেয়েছেন ১০ নার্স। অ্যাসোসিয়েশন অব গ্রাসরুটস্ উইমেন এন্টারপ্রেনার্স বাংলাদেশের (এজিডব্লিউইবি) আয়োজনে ও আইএফআইসি ব্যাংকের সহযোগিতায় তাদের প্রত্যেককেই ৫০ হাজার টাকা ও সম্মানসূচক একটি ক্রেস্ট দেওয়া হয়েছে।

সম্মাননাপ্রাপ্ত নার্সরা হলেন- মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নার্সিং সুপারিনটেনডেন্ট নাজনীন খানম, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের নার্সিং সুপারিনটেনডেন্ট তেরেসা বারল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স কামরুন নাহার, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ রেহেনা পারভিন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স মিনাক্ষী রানী দাস, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রুনু বেরুনিকা কস্তা, নেত্রকোনার খালিয়াজুড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টাফ নার্স আফরোজা সুলতানা, হৃদরোগ ইনস্টিটিউট হাসপাতালের স্টাফ নার্স মিতালি রানী কর্মকার, বক্ষব্যাধি হাসপাতালের স্টাফ নার্স জাবেদা ভূইয়া ও দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টাফ নার্স দোলা আক্তার।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, করোনাকালীন সময়ে আমাদের চিকিৎসক-নার্সরা জীবন ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন। তাদের কারণেই দেশে করোনা মোকাবেলা করতে পেরেছি। এ সম্মাননা শুধু আপনাদের নয়, সারাদেশের স্বাস্থ্যকর্মীদের।