চিরকালীন অচলায়তন ভাঙলো বৈশাখী টেলিভিশন

38
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
দেশের জন্য ইতিহাস গড়া এক ঘটনা ঘটিয়েছে ‘বৈশাখী টেলিভিশন’। চরম অবহেলিত কিন্তু প্রতিভাবান দু’জন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে পেশাদার সংবাদ পাঠ ও একটি জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটকের মূল চরিত্রে যুক্ত করেছে দেশের জনপ্রিয় বেসরকারি এই স্যাটেলাইট চ্যানেলটি। আগামীকাল (সোমবার, ৮ই মার্চ) আন্তর্জাতিক নারী দিবসে এই দু’জন ট্রান্সজেন্ডার নারী বৈশাখীর পর্দায় আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের জনগোষ্ঠীর জন্য মর্যাদাকর কিন্তু নজিরবিহীন এ কাজে যাত্রা শুরু করবেন।

তাদের দু’জনের কেউই নিজেদের পরিবারে টিকতে পারেনি, কারণ তারা জন্মগতভাবে নারীও নন, পুরুষও নন, ট্রান্সজেন্ডার। অবশ্য শিশির নিজেকে পরিচয় দেন ট্রান্সজেন্ডার নারী হিসেবে, আর মৌ এর মতে, তিনি তৃতীয় লিঙ্গের নারী।

শিশির কলেজে পা রাখা পর্যন্ত পরিবারে টিকলেও মৌকে তৃতীয় শ্রেনীতে স্কুল ও বাড়ি ছাড়তে হয়েছে। মৌ নিজের সাথে জেদ করে পড়া-লেখা করেছেন, নিয়েছেন স্মাতকোত্তর ডিগ্রি, করেছেন চাকরী। সেই সাহস ও সুযোগের কোনটাই মৌয়ের সৌভাগ্যে জুটেনি।

তাসনুভা আনান শিশির ও নুসরাত জাহান মৌ প্রায় সমবয়সী, ৩০ ছুঁই ছুঁই। ঘরে ও বাইরে অবর্ণনীয় দুঃখ-কষ্ট, নিপীড়ন, গঞ্জনা, অপমান সইতে হয়েছে তাদের। তবু স্বপ্ন দেখেছেন কোন একসময় জীবনের মোড় ঘুরে সুন্দর কিছু জুটবে।

শিশির ছোটবেলা থেকে নাচ ও থিয়েটারের সাথে যুক্ত ছিলেন। মৌয়েরও অভিনয় করার প্রতি ভীষণ আগ্রহ ছিলো। শুধু ছিলনা স্বপ্ন পূরণের কোন সম্ভাবনা। কেবল কষ্টগুলো বড় হয়ে ছিল জীবনে। কিন্তু দু’জনই সম্প্রতি হঠাৎ বৈশাখী টেলিভিশন পরিবারে ডাক পান। শিশির পেশাদার সংবাদ বুলেটিন পাঠ করার জন্য, আর মৌ জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটক চাপাবাজ-এর একটি প্রধান নারী চরিত্রে অভিনয়ের জন্য।

শিশির ও মৌ দু’জনই জীবনের এই অর্জনকে দেশের ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে আনার জন্য ঐতিহাসিক মাইলফলক পদক্ষেপ হিসেবে দেখেন। আর বৈশাখীর উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন মনে করেন, এটা তাদের সামাজিক দায়িত্ব, যাত্রা শুরুর ইতিহাসটা গড়ে দিয়েছে বৈশাখী।

‘ট্রান্সজেন্ডার নারীদের বৈশাখী টেলিভিশনের মূলধারার সংবাদ পাঠে এবং জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটকের মূল চরিত্রে যুক্ত করতে পেরে আমরা আনন্দিত। আমাদের কাছে কারও লিঙ্গ পরিচয় গুরুত্বপূর্ণ নয়। কোন কাজের জন্য যোগ্যতা, দক্ষতা আমাদের কাছে সবচেয়ে বড়’- টিপু আলম মিলন, উপ- ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক, বৈশাখী টেলিভিশন।

শিশির ও মৌ যেমন উচ্ছ্বসিত, তেমনি বৈশাখী পরিবারও দু’জন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে মূলধারায় যুক্ত করতে পেরে গর্বিত।

শিশির আগামীকাল (সোমবার) নারী দিবসে প্রথম দুপুর ১২টা এবং পরে বিকেল ৪টার সংবাদ বুলেটিন পাঠ করবেন। আর বৈশাখী টেলিভিশনে মৌ এর প্রথম অভিনয় দেখা যাবে আগামীকাল (সোমবার) রাত ৯টা ২০ মিনিটে ধারাবাহিক নাটক ‘চাপাবাজে’। যা প্রতি সপ্তাহে তিনদিন (শনি ও রবি ও সোমবার) প্রচারিত হবে একই সময়ে।