দেশে টিকা নিয়ে ৬৩০ জনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

27
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
দেশে গণটিকাদান কর্মসূচির আওতায় ১৪ দিনে করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়েছেন ২৪ লাখ ৯১ হাজার ৫৩ জন। এরমধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে ৬৩০ জনের মধ্যে।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) এক লাখ ৮২ হাজার ৮৯৬ জন টিকা নেন। তাদের মধ্যে মাত্র ২১ জনের সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া (যেমন জ্বর, টিকা দেওয়া স্থানে লাল হাওয়া ইত্যাদি) দেখা গেছে।

তবে এ পর্যন্ত টিকা গ্রহণে পিছিয়ে আছে ময়মনসিংহ ও বরিশাল বিভাগ। আর প্রথম থেকে টিকা গ্রহণে এগিয়ে আছে ঢাকা বিভাগ তারপরই চট্টগ্রামের অবস্থান।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সারাদিন ঢাকা মহানগরসহ ঢাকা বিভাগে টিকা নিয়েছেন ৬২ হাজার ২৩৯ জন। চট্টগ্রাম বিভাগে টিকা গ্রহীতার সংখ্যা ২৭ হাজার ৭০৮ জন। আর পিছিয়ে থাকা ময়মনসিংহ ও বরিশাল বিভাগে টিকা নিয়েছেন ৮ হাজার ১৮৮ জন ও ৮ হাজার ৪৪৩ জন।

এছাড়া রাজশাহী বিভাগে টিকা নিয়েছেন ১৮ হাজার ৬৫১ জন, রংপুর বিভাগে টিকা নিয়েছেন ১৫ হাজার ৭৬৫ জন, খুলনা বিভাগে টিকা নিয়েছেন ২২ হাজার ৮১৬ জন এবং সিলেট বিভাগে টিকা গ্রহীতার সংখ্যা ৯ হাজার ৮৬ জন।

মঙ্গলবারের টিকা গ্রহীতাদের মধ্যে ১ লাখ ১৫ হাজার ৩১৮ জন পুরুষ এবং ৬৭ হাজার ৫৭৮ জন নারী। আর এ পর্যন্ত টিকা গ্রহীতাদের মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ১৬ লাখ ৩৪ হাজার ৩৩ জন এবং নারী ৮ লাখ ৫৭ হাজার ২০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, এখন পর্যন্ত ঢাকা বিভাগে টিকা নিয়েছেন ৭ লাখ ২১ হাজার ১৯ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে নিয়েছেন ১ লাখ ১১ হাজার ৩৫২৪ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে নিয়েছেন ৫ লাখ ৬০ হাজার১৫৩ জন, রাজশাহী বিভাগে ২ লাখ ৮১ হাজার ৫৮৩ জন, রংপুর বিভাগে ২ লাখ ৩০ হাজার ১৫০ জন, খুলনা বিভাগে ২ লাখ ৯৭ হাজার ৪৫৩ জন, বরিশাল বিভাগে ১ লাখ ২০ হাজার ৬১১ জন এবং সিলেট বিভাগে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৫৬০ জন।

গত ২৭ জানুয়ারি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পাঁচজনকে টিকা দেওয়া হয়। পরে গত ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় গণটিকাদান কার্যক্রম।

জাতীয়ভাবে টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলছে। একইসঙ্গে ক্রমে টিকার প্রতি আগ্রহ বাড়ছে মানুষের।