সোশ্যাল মিডিয়ার কথায় বিদ্যালয় বন্ধ হবে না: শিক্ষা উপমন্ত্রী

22
Print Friendly, PDF & Email

সিনিয়র করসপন্ডেন্ট, ঢাকাঃ
শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, সোশ্যাল মিডিয়ার কথা শুনে আমরা রাষ্ট্র চালাবো না। ডেঙ্গুর কারণে বিদ্যালয়গুলোও বন্ধ করা হবে না। বরং বাসা-বাড়ির চেয়ে বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সোমবার সকালে পেশাদার রিপোর্টারদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) প্রয়াত সদস্য সন্তানদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আগে আমাদের জন্য ম্যালেরিয়া বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। সেটি আমরা মোকাবেলা করেছি। ডেঙ্গুও মুক্ত হবে। আর স্কুল বন্ধ রাখার যে দাবি উঠছে সেটা কতটুকু অভিভাবকদের পক্ষ থেকে আর কতটুকু গুজব ছড়ানোর মানসিকতা থেকে তা আমরা নিশ্চিত নই। বিদ্যালয়গুলোতে ছাত্রছাত্রীরা এখনো ভাল আছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বিষয়ক মন্ত্রণালয় খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তারা বন্ধ করবে না। আমরাও (শিক্ষা মন্ত্রণালয়) সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিদ্যালয়গুলো বন্ধ করবো না।

ডিআরইউ’র সেবামূলক কর্মকাণ্ডের আওতায় সংগঠনের প্রয়াত সদস্য সন্তানদের মাঝে ‘শিক্ষা বৃত্তি-২০১৯’ প্রদান করা হয়েছে। বিএসবি-ক্যামব্রিয়ান শিক্ষা পরিবারের সহযোগিতায় এ বছর প্রয়াত ২০ সদস্যদের সন্তানদের মাসিক পরিবার প্রতি ৩ হাজার টাকা হারে বার্ষিক এককালীন ৩৬ হাজার টাকা বৃত্তি প্রদান করা হয়।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল আরও বলেন, অনেকের দাবি আসছে বিদ্যালয় বন্ধ করে দেয়ার। কিন্তু কোনো সায়েন্টেফিক প্রমাণ নাই যে বিদ্যালয়গুলোতেই এডিস মশা ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে। এ নিয়ে প্যানিক সৃষ্টি করার কোনো সুযোগ নাই। বাসাবাড়িতে মশা সৃষ্টি হচ্ছে। সুতরাং বাসাবাড়ি সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখবেন। ঘুমানোর সময় মশারী ব্যবহার করতে হবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বিএসবি-ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান লায়ন এম. কে. বাশার বলেন, ডিআরইউ’র বিভিন্ন কার্যক্রমের সাথে আগেও ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকবো।

ডিআরইউ সভাপতি ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিআরইউ কল্যাণ সম্পাদক কাওসার আজম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ডিআরইউ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ মাহমুদ এ রিয়াত, প্রশিক্ষণ ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুল হাই তুহিন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক এমদাদুল হক খান, আপ্যায়ন সম্পাদক এইচ এম আকতার, কার্যনির্বাহী সদস্য খালিদ সাইফুল্লাহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ ও সৈয়দ শুকুর আলী শুভ।