ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত স্মৃতির শহীদ মিনার

2
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
অপেক্ষা আর একদিনের। ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত হচ্ছে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। সার্বিক প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ধোয়া-মোছার কাজ শেষে চলছে মূল বেদিসহ আশপাশে আলপনা আঁকার কাজ। আয়োজকরা বলছেন, স্বাস্থ্যবিধি মানতে এরই মধ্যে জারি করা হয়েছে বেশকিছু নির্দেশনা।

রং আর নিপুণ হাতের ছোঁয়ায় জীবন্ত হচ্ছে শহীদ বেদি। তুলির আঁচড়ে প্রকাশ পাচ্ছে আলপনার অবয়ব। প্রতি বছরের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীরা আঁকছেন আলপনা। তবে কোভিড বাস্তবতায় ভিন্নতা এসছে কিছুটা।

এবারই প্রথম শহীদ মিনারের আশপাশের রাস্তা রাঙানো হচ্ছে না। সার্বিক প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন, তাই দিনরাত চলছে আঁকিবুকির কাজ।

শহীদ মিনার প্রস্তুতিতে কাজ করা এক তরুণী জানান, এখানে কাজ করতে আমার অনেক ভালো লাগে। এখানে ভালোবাসা-শ্রদ্ধা সবকিছু মিলে কাজগুলো হয়।

আয়োজকরা আগেই জানিয়েছেন, সীমিত পরিসরে হবে প্রভাতফেরি। বাধ্যতামূলক করা হয়েছে মাস্ক আর শারীরিক দূরত্ব। যারা শ্রদ্ধা জানাতে আসবেন প্রবেশ করতে পারবেন পলাশী মোড় দিয়ে, বের হতে হবে চানখারপুল অথবা দোয়েল চত্বর দিয়ে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের সহকারী অধ্যাপক কামরুজ্জামান বলেন, রাস্তায় ব্যাপক পরিসরে যে আলপনা করা হতো। সেটা এবার বাদ দেওয়া হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃত্যকলা বিভাগের প্রভাষক মনিরা পারভীন বলেন, করোনার কারণে শহীদ বেদিতে মাস্ক ছাড়া প্রবেশ করতে পারবেন না। একই সঙ্গে বেদিতে ঢোকার জন্য যে মুখ থাকবে; সেখানে হ্যান্ডস্যানিটাইজার থাকবে।

আন্তুর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবসকে ঘিরে নেওয়া হয়েছে তিনস্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা। ১৪৫ সিসিটিভি ক্যামেরা দিয়ে ঢেকে ফেলা হয়েছে পুরো শহীদ মিনার এলাকা।