শিল্পী গগন হরকরাসহ সব গুণীজনের স্মৃতি রক্ষা করা হবে: মেয়র আনোয়ার আলী

56
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন রিপোর্ট:
লোকসংগীত শিল্পী গগন হরকরাসহ কুষ্টিয়ার সব গুণীজনের স্মৃতি রক্ষা করবে কুষ্টিয়া পৌরসভা। ‘গগন হরকরা’ শিরোনামে উদিয়মান অনলাইন সংবাদমাধ্যম স্পেশাল নিউজ ২৪.কম এর বিশেষ আলোচনায় কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী এছাড়াও বলেন, গুণীজনদের স্মৃতি রক্ষায় অন্যদের উদ্যোগেরও সাথে থাকবেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় অনলাইনে সরাসরি সম্প্রচারিত এ আলোচনায় যোগ দেন, দৈনিক কুষ্টিয়ার সম্পাদক ও গবেষক ড. আমানুর আমান ও কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি, দৈনিক আজকের আলো’র সম্পাদক গাজী মাহাবুব রহমান। স্পেশাল নিউজ ২৪.কম এর সম্পাদক হাসান জাহিদের সঞ্চালনায় গগন হরকরা ভাষ্কর্যস্থল থেকে যুক্ত ছিলেন সাংবাদিক শেখ হাসান বেলাল।

আলোচনা শুরু হয়, গগন হরকরা’র বিখ্যাত গান ‘আমি কোথায় পাব তারে/ আমার মনের মানুষ যেরে’ দিয়ে। গান পরিবেশন করেন এ প্রজন্মের শিল্পী কবির হাসান বকুল।

গগন চন্দ্র দাস ওরফে গগন হরকরার জীবনের ওপর আলোকপাত করেন গবেষক ড. আমানুর আমান। তিনি বলেন, গগন চন্দ্র ডাকপিয়ন হিসেবে যেমন দায়িত্বশীল ছিলেন তেমনি ছিলেন দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ। শিলাইদহে নিভৃত পল্লীতে ছিলো তার বাস। নিভৃতচারী এই লোকসংগীত শিল্পী এবং গীতিকারের গানে উদ্বুদ্ধ হয়ে এবং সেই সুরে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচনা করেন আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি, যা আমাদের জাতীয় সংগীত। আড়ালে থাকা এই মহামানবের ভাষ্কর্য তৈরি করে সামনে নিয়ে এসেছেন আরেক গুণী মানুষ জনপ্রিয় মেয়র আনোয়ার আলী।

কুষ্টিয়া শহরের নিশান মোড় থেকে গগন হরকরার ভাষ্কর্যস্থলের দৃশ্য দেখান সাংবাদিক শেখ হাসান বেলাল। তিনি বলেন, ভাস্কর্যটি অনেকটা অযত্ন-অবহেলায় রয়েছে। এর হাতের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখান থেকে ঘন্টি খুলে গেছে। বর্ষা আর হারিকেন খুলে পড়ে আছে বেদীর ওপর। সেখানে নেই গগন হরকরা সম্পর্কে কোন বর্ণনা। বরং ভাষ্কর্যের পরিকল্পনাকারী আনোয়ার আলীর নাম এমনভাবে লাগানো হয়েছে তাতে মনে হতে পারে এই ভাষ্কর্যটিই আনোয়ার আলীর।

অন্য আলোচক কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি ও গগন হরকরা রিসার্চ অ্যান্ড কালচারাল সেন্টারের সভাপতি গাজী মাহাবুব রহমান বলেন, গগন হরকরার স্মৃতি রক্ষায় আরো উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি বলেন, যদিও বিক্রি করে দিয়েছেন তারা উত্তরপুরুষরা তবুও তারা বাড়ি সংরক্ষণ করা দরকার।

কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, এই গগন হরকরার ভাষ্কর্য সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এটি ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। নির্মাতা শিল্পীকে খবর দেয়া হয়েছে তিনি আসলেই এটা সংস্কার করা হবে। আর ভাষ্কর্যস্থলে যা যা পরিবর্তন দরকার তা করা হবে বলেও জানান তিনি। আনোয়ার আলী বলেন, শুধু তাইই নয়, গগন হরকরার স্মৃতি রক্ষার্থে ধারাবাহিকভাবে কাজ করা হবে বলেন মেয়র। যাদের নিয়ে কুষ্টিয়ার মানুষ গর্ব করে তাদেরকে মানুষের সামনে নিয়ে আসার পরিকল্পনা আছে কুষ্টিয়া পৌরসভার বলেন আনোয়ার আলী।

তিনি বলেন, এ দায়িত্ব কুষ্টিয়ার সব মানুষের। সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। পুরো আলোচনা অনুষ্ঠানটি স্পেশাল নিউজ (এসএন) এর ফেসবুক পেইজে সম্প্রচারিত হয়।