ইবির কোষাধ্যক্ষ পদ ৬ মাস শূন্য, উন্নয়নমূলক কাজে স্থবিরতা

10
Print Friendly, PDF & Email

ডিষ্ট্রিক্ট করসপন্ডেন্ট, কুষ্টিয়া:
দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমের ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) সাবেক কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহার মেয়াদ শেষ হয়েছে গত বছরের ২১ আগস্ট। তারপর থেকে ৬ মাসের বেশি সময় ধরে গুরুত্বপূর্ণ এই পদটি শূন্য রয়েছে।

এদিকে, গুরুত্বপূর্ণ এই পদটি শূন্য থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজেও দেখা দিয়েছে স্থবিরতা। বাধা পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে বড় মেগা প্রকল্পের কাজেও।

ইবির প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবাসিক হল ও ভবন সংস্কার কাজে ১০টি লোকাল টেন্ডার সম্পন্ন হয়েছে। আর টেন্ডার মূল্যায়ন কমিটির প্রধানের অনুমোদন ছাড়া এসব কাজ শুরুও হয় না। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষই হলেন এই কমিটির প্রধান।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও কোষাধ্যক্ষের মেয়াদ গেল বছরের ২১ আগস্টে শেষ হলে ইবির উপাচার্য পদে ২৯ সেপ্টেম্বর ঢাবির অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালামকে নিয়োগ প্রদান করা হয়। তবে এখনো পর্যন্ত কোষাধ্যক্ষ পদে কাউকে নিয়োগ দেয়া হয়নি।

এদিকে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, কোষাধ্যক্ষ পদে নিয়োগ পেতে ইতিমধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষকের নাম উঠে এসেছে। তাদের মধ্যে ইবির অর্থনীতি বিভাগের সিনিয়র অধ্যাপক আলমগীর হোসেন ভুইঁয়া, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. কাজী আখতার হোসেনসহ বাইরের বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু শিক্ষকদের নাম শোনা যাচ্ছে। যে যার মতো করে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের প্রভাবশালী নেতা থেকে শুরু করে মন্ত্রণালয় পর্যন্ত তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে ইবির জন্য একজন যোগ্য কোষাধ্যক্ষ নিয়োগ প্রদানের দাবি জানিয়েছেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমানসহ অনেকে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মু. আতাউর রহমান জানান, কোষাধ্যক্ষ না থাকার কারণে তার নির্ধারিত যে দায়িত্বগুলো ছিল সে সমস্ত কাজগুলো এখন উপাচার্য করছেন।