বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা

9
Print Friendly, PDF & Email

টাঙ্গাইল থেকে করসপন্ডেন্টঃ
টাঙ্গাইলে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন অন্তঃসত্ত্বা এক স্কুলছাত্রীর বাবা। রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) মামলা দায়েরের পর থেকে অভিযুক্ত প্রেমিক ও তার পরিবার পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী জানায়, একই স্কুলে পড়ালেখার সুবাদে প্রায় তিন বছর আগে কালিহাতী উপজেলার আরজু মিয়ার ছেলে লিমনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার। গত বছরের জানুয়ারিতে প্রথম প্রেমিক লিমন তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করে। এরপর থেকে প্রতিনিয়তই তাদের মধ্যে শারীরিক মেলামেশা চলতে থাকে। গত ৫ মাস আগে হঠাৎ স্কুলছাত্রী অসুস্থ হলেও বিষয়টি পরিবারের কাছে গোপন রাখেন।

তবে দিনদিন স্কুলছাত্রীর শারীরিক পরিবর্তন দেখা দেয়ায় পরিবাবের লোকজন গত বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার পরীক্ষা শেষে সে অন্তঃসত্ত্বা বলে নিশ্চিত করেন। পরে ওই স্কুলছাত্রীর প্রেমিক লিমনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দেন। এতে চরম বিপাকে পড়ে অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী ও তার পরিবার।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কালিহাতী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুমি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলা দায়েরের পরদিন সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রেমিক লিমনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।