জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ফিরছে যুক্তরাষ্ট্র

7
Print Friendly, PDF & Email

ইন্টারন্যাশনাল নিউজ ডেস্ক:
তিন বছর পর পুনরায় জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে যোগ দিচ্ছে নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সরকার। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শাসনামলে মানবাধিকার কাউন্সিলের বিরুদ্ধে ‘রাজনৈতিক পক্ষপাতের’ অভিযোগ এনে ২০১৮ সালে সংস্থাটি ত্যাগ করেছিল তৎকালীন প্রশাসন। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকতা জানিয়েছেন, আজ সোমবার জেনেভা ভিত্তিক জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে পর্যবেক্ষক হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের পুনরায় যোগ দেওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সরকারের একাধিক কর্মকর্তা জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল ‘চরম ইসরায়েলবিরোধী’ বলে সংস্থাটির বিরুদ্ধে পক্ষপাতের অভিযোগ তুলেছিলেন।

ক্ষমতার পালাবদলে এখন যুক্তরাষ্ট্রে এসেছে নতুন সরকার। জো বাইডেন প্রশাসনের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মানবাধিকার কাউন্সিলে ফিরে আসার বিষয়ে বলেছেন, ‘কারণ আমরা জানি কাউন্সিলে গঠনমূলক পরিবর্তন ও পরিবর্ধন আনার সর্বোত্তম পন্থা হলো এতে নিয়মতান্ত্রিকভাবে যুক্ত থাকা।’

‘আমরা জানি বিশ্বজুড়ে যারা নৈরাজ্য ও অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি ফোরাম হয়ে ওঠার মতো যোগ্যতা মানবাধিকার কাউন্সিলের রয়েছে। আমরা সংস্থাটির সঙ্গে যুক্ত থেকে নিশ্চিত করতে চাই এটি যেন সেই যোগ্যতার প্রমাণ দিতে পারে,’ যোগ করেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ওই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা।

সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও মানবাধিকার কাউন্সিলকে মানবাধিকারের দুর্বল রক্ষক হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন। আর তৎকালীন জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি দাবি করেছিলেন, কপট ও স্বার্থপরায়ণ সংস্থাটি মানবাধিকারকে প্রহসনে পরিণত করেছে।

২০০৬ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল গঠিত হয়। জেনেভাভিত্তিক এই কাউন্সিলের লক্ষ্য বিশ্বজুড়ে মানবাধিকার সমুন্নত ও সুরক্ষা।